নিষেধাজ্ঞার কারণে আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজের প্রথম ম্যাচে নেই অধিনায়ক মাশরাফি বিন মোর্তাজার। মোর্তাজার বদলে ওই ম্যাচে টাইগারদের নেতৃত্ব দেবেন সহ-অধিনায়ক সাকিব আল হাসান।

গতবছর এপ্রিলে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজের শেষ ম্যাচে স্লো ওভার রেটের কারণে এক ম্যাচ নির্বাসিত হয়েছিলেন অধিনায়ক মাশরাফি। ওই ম্যাচে  ৭০ রানে শ্রীলঙ্কার কাছে পরাজিত হয় বাংলাদেশ।  ম্যাচে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে ৫০ ওভার বল করতে ব্যর্থ হন বাংলাদেশের বোলাররা। ফলে অধিনায়ক মাশরাফির ৪০ ও অন্যদের ২০ শতাংশ করে ম্যাচ ফি-র জরিমানা হিসেবে কেটে ন‌েওয়া হয়েছে। এই একই কারণে ডাম্বুলায় প্রথম ম্যাচেও সতর্ক করা হয়েছিল বাংলাদেশ দলকে। কিন্তু বিষয়টিকে কোনওরকম গুরুত্ব না দিয়ে দ্বিতীয় ম্যাচেও বাংলাদেশের বোলাররা ২৫ মিনিট বেশি সময় নেয়। বৃষ্টিতে অবশ্য ওই ম্যাচ পরিত্যক্ত ঘোষণা করা হয়।

আইসিসির  নিয়ম অনুযায়ী ১২ মাসের মধ্যে ২ বার এমন জরিমানা গুনতে হলে দলের অধিনায়ককে এক ম্যাচ নির্বাসিত হতে হবে। আয়ারল্যান্ডে প্রথম ম্যাচে এ কারণেই খেলতে পারবেন না মাশরাফি। এর আগেও নিউজিল্যান্ড সফরে একটি ম্যাচে বাংলাদেশ দলকে এই একই কারণে জরিমানা গুনতে হয়েছিল। বাংলাদেশের এই রোগ নতুন নয়। বিশ্বকাপেও এই একই ঘটনার সাক্ষী ছিল সমগ্র ক্রিকেট বিশ্ব। ২০১৫ বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে ভারতের বিপক্ষে স্লো ওভাররেটের কারণে পরবর্তী ম্যাচে  নিষিদ্ধ হয়েছিলেন মাশরাফি। এর ফলস্বরুপ  পাকিস্তানের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে খেলতে পারেননি তিনি। সেই ম্যাচেও তার বদলে অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করেন সাকিব।