ঈদের ছুটির পর বাজারমুখী বিনিয়োগকারীরা

August 13, 2013 1:27 pmComments Off on ঈদের ছুটির পর বাজারমুখী বিনিয়োগকারীরাViews: 15
Print Friendly and PDF
FaceBook YouTube
সূচক ও লেনদেন বেড়েছে

ঈদের ছুটির পর বাজারমুখী বিনিয়োগকারীরা

ঈদের ছুটি কাটিয়ে কর্মস্থলে ফিরতে শুরু করেছেন বিনিয়োগকারীরা। এতে এক দিনের ব্যবধানে দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) লেনদেন বেড়েছে দ্বিগুণ। চাহিদা বৃদ্ধি পাওয়ায় অধিকাংশ শেয়ারের দরবৃদ্ধিতে সব ধরনের সূচকও উল্লেখযোগ্য পরিমাণে বেড়েছে। অন্য শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জেও (সিএসই) একই ধরনের ইতিবাচক প্রবণতা লক্ষ করা গেছে। তবে আসন্ন নির্বাচন ও যুদ্ধাপরাধীদের বিচারে সৃষ্ট রাজনৈতিক সহিংস পরিস্থিতির আশঙ্কায় কিছুটা সতর্ক অবস্থায় রয়েছেন ব্যক্তি শ্রেণীর বড় বিনিয়োগকারীরা।

বাজার পর্যালোচনায় দেখা যায়, বিনিয়োগকারীস্বল্পতায় আগের দিন সোমবার ডিএসইর লেনদেন ৬৪ কার্যদিবসের মধ্যে সর্বনিম্ন অবস্থানে নেমে আসে। তবে হরতালের কারণে ঈদের আমেজ শেষ হতে না হতেই বিনিয়োগকারীরা কর্মস্থলে ফিরতে শুরু করেন। এতে গতকাল মঙ্গলবার বিনিয়োগকারীর অংশগ্রহণ বৃদ্ধি পাওয়ায় উভয় শেয়ারবাজারেই লেনদেন বেড়েছে। সোমবার ডিএসইর মোট লেনদেনে সাধারণ বিনিয়োগকারীর অংশগ্রহণ ২০ শতাংশ থাকলেও গতকাল তা ৫০ শতাংশে উন্নীত হয়েছে। এছাড়া প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীরাও গতকাল শেয়ার কেনার পরিমাণ বাড়িয়েছেন।

মঙ্গলবার ডিএসইতে লেনদেনের পরিমাণ ছিল ৩২৩ কোটি ২১ লাখ টাকা, যা আগের দিনের চেয়ে ১৬০ কোটি ৯১ লাখ টাকা বেশি। অন্য শেয়ারবাজার সিএসইতে কেনাবেচা হয়েছে ২৩ কোটি ৯৮ লাখ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ড ইউনিট, যা আগের দিনের চেয়ে ৯ কোটি ২৮ লাখ টাকা বেশি।

বাজার বিশ্লেষণে দেখা যায়, গতকাল লেনদেনের শুরু থেকেই ক্রয়াদেশের চাপ বাড়তে থাকে। এতে লেনদেন শুরুর প্রথম ঘণ্টায় ডিএসই ব্রড ইনডেক্স আগের দিনের চেয়ে প্রায় ৭০ পয়েন্ট বৃদ্ধি পায়। পরে বিক্রয়চাপ কিছুটা বাড়লে সূচক নিচে নামতে থাকে। তবে অধিকাংশ শেয়ার লাভজনক অবস্থায় থাকায় প্রাতিষ্ঠানিক ও ব্যক্তিশ্রেণীর বড় বিনিয়োগকারীরাও শেয়ার ক্রয়ের আদেশ দেন। এতে বড় ধরনের ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতা দিয়েই লেনদেন শেষ হয়েছে।

গতকাল প্রায় ৮০ শতাংশ শেয়ারের দরবৃদ্ধিতে ডিএসই ব্রড ইনডেক্স আগের কার্যদিবসের চেয়ে ৬২ দশমিক ৫১ পয়েন্ট বেড়ে ৩৯৭৯ দশমিক ৩৫ পয়েন্ট এবং ডিএস-৩০ মূল্যসূচক ২৫ দশমিক ৮৮ পয়েন্ট বেড়ে ১৫০৭ দশমিক ৬৪ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। সিএসইতে লেনদেন হওয়া ৭২ শতাংশ শেয়ারের দরবৃদ্ধিতে সার্বিক মূল্যসূচক আগের দিনের চেয়ে ২১৬ পয়েন্ট বেড়ে ১২৩৭১ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। আর স্টক এক্সচেঞ্জটির সেরা কোম্পানি নিয়ে তৈরি সিএসই-৩০ মূল্যসূচক আগের দিনের চেয়ে ১৬৮ পয়েন্ট বেড়ে ১০৪৩০ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। বড় মূলধনি কোম্পানি, বিশেষ করে তিতাস গ্যাস, আইসিবি, গ্রামীণফোন, ইউনিক হোটেল ও যমুনা অয়েল সূচক বাড়াতে বেশি ভূমিকা রেখেছে।
মঙ্গলবার ডিএসইতে লেনদেন হওয়া ২৮৬টি কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের মধ্যে দাম বেড়েছে ২২৮টির, কমেছে ৩৬টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২২টি কোম্পানির শেয়ারের। গতকাল ডিএসইতে দরবৃদ্ধি পাওয়া ৫৭টি কোম্পানির দর ৪ শতাংশের বেশি বেড়েছে। সিএসইতে লেনদেন হওয়া ১৮১টি কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের মধ্যে দাম বেড়েছে ১৩১টির, কমেছে ৩২টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ১৮টি কোম্পানির শেয়ারের।

ডিএসইর খাতওয়ারি বিশ্লেষণে দেখা যায়, একমাত্র খাদ্য ও আনুষঙ্গিক খাত ছাড়া অন্য সব খাত ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতায় রয়েছে। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি বেড়েছে জ্বালানি খাতের শেয়ার। গতকাল এ খাতের শেয়ার গড়ে ২ দশমিক ৮২ শতাংশ দর বেড়েছে। দরবৃদ্ধির পরের অবস্থানে রয়েছে ব্যাংকবহির্ভূত আর্থিক প্রতিষ্ঠান। গড়ে এ খাতের শেয়ার দর বেড়েছে ২ দশমিক ৬৯ শতাংশ। এছাড়া প্রকৌশল খাতের ২ দশমিক ৬০ শতাংশ দরবৃদ্ধি ছিল উল্লেখযোগ্য। আর চলতি অর্থবছরের প্রথম মাসে রেডিমেড গার্মেন্ট পণ্যের রফতানি ২৬ শতাংশ বৃদ্ধির সংবাদে এ খাতের প্রতি বিনিয়োগকারীর আগ্রহ লক্ষ করা গেছে।

মঙ্গলবার ডিএসইতে লেনদেনের ভিত্তিতে (টাকায়) প্রধান ১০টি কোম্পানি হলো— পদ্মা অয়েল, মেঘনা পেট্রোলিয়াম, বিএসসিসিএল, অলিম্পিক ইন্ডাস্ট্রিজ, স্কয়ার ফার্মা, যমুনা অয়েল, আরগন ডেনিমস, প্রিমিয়ার সিমেন্ট, গ্রামীণফোন ও ইউনাইটেড এয়ারওয়েজ।

দরবৃদ্ধির শীর্ষে প্রধান ১০টি কোম্পানি হলো— ইস্টার্ন হাউজিং, রেনউইক যজ্ঞেশ্বর, নাভানা সিএনজি, বিডি ল্যাম্পস, চতুর্থ আইসিবি মিউচুয়াল ফান্ড, পঞ্চম আইসিবি মিউচুয়াল ফান্ড, ইবিএল প্রথম মিউচুয়াল ফান্ড, পদ্মা অয়েল, আইসিবি ইসলামিক মিউচুয়াল ফান্ড, ইবিএল এনআরবি মিউচুয়াল ফান্ড।
অন্যদিকে দাম কমার শীর্ষে প্রধান ১০টি কোম্পানি হলো— সমতা লেদার, গ্রামীণ মিউচুয়াল ফান্ড-১, প্রাইম ব্যাংক প্রথম আইসিবি মিউচুয়াল ফান্ড, স্টান্ডার্ড ইন্স্যুরেন্স, মার্কেন্টাইল ইন্স্যুরেন্স, ম্যারিকো বাংলাদেশ, আনলিমা ইয়ার্ন, আইসিবি তৃতীয় এনআরবি মিউচুয়াল ফান্ড, ফনিক্স ফিন্যান্স প্রথম মিউচুয়াল ফান্ড ও আইসিবি এএমসিএল দ্বিতীয় মিউচুয়াল ফান্ড।
সূত্রঃ বনিকবার্তা

সর্বশেষ সংবাদ

Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.