বিবর্তনের বিভিন্ন প্রক্রিয়ায় থ্যাংকসগিভিংঃ আমেরিকায় বসবাসকারি বাংলাদেশি আমেরিকানদের আয়োজনে উৎসব

November 25, 2016 10:35 pmComments Off on বিবর্তনের বিভিন্ন প্রক্রিয়ায় থ্যাংকসগিভিংঃ আমেরিকায় বসবাসকারি বাংলাদেশি আমেরিকানদের আয়োজনে উৎসবViews: 27
Print Friendly and PDF
FaceBook YouTube

বিবর্তনের বিভিন্ন প্রক্রিয়ায় থ্যাংকসগিভিং এখন আমেরিকানদের জাতীয় উৎসবে পরিগণিত হয়েছে। প্রতি বছর নভেম্বর মাসের শেষ বৃহস্পতিবার টার্কি ভোজন পানাহারের মধ্য দিয়ে দেশব্যাপী উদযাপিত হয় থ্যাংকস গিভিং।

লস এঞ্জেলেস প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিভিন্ন বাসায় বাড়িতে দলবদ্ধভাবে নানা আয়োজনে থ্যাংকসগিভিং উৎসবটি উদযাপন করে। -ছবিঃএকুশ

লস এঞ্জেলেস প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিভিন্ন বাসায় বাড়িতে দলবদ্ধভাবে নানা আয়োজনে উৎসবটি উদযাপন করে। -ছবিঃএকুশ

থ্যাংকস গিভিং উৎসবের সূত্রপাত সম্পর্কে বিভিন্ন মতবাদ পাওয়া যায় তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলঃ
লেইডেন আমেরিকান পিল্গ্রিম মিউজিয়ামের ডিরেক্টর জেরেমি ব্যাঙস এর মতে ১৬২১ সালে ম্যাসাচুসেটস এর প্লাইমাউথ নতুন ফসল ওঠার সময়ের এই উৎসব উদযাপিত হত। তারও আগের ১৬১৯ সালে ভার্জিনিয়াতেও এমন উৎসব পালিত হওয়ার রেকর্ড পাওয়া যায়। পরবর্তীতে আমেরিকার বিভিন্ন অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়া এই উৎসব ২৬ নভেম্বর ১৭৮৯ সালে জর্জ ওয়াশিংটন সমগ্র আমেরিকাব্যাপী একসাথে থ্যাঙ্কসগিভিং উদযাপনের প্রচারণা চালান। অবশেষে  দিনটিকে জাতীয় ছুটির দিন ঘোষণা করে ১৯৪১ সালের ২৬ ডিসেম্বর প্রেসিডেন্ট রুজভেল্ট রেজ্যুলেশন সাক্ষর করেন। জেরেমি ব্যাঙস এর মতে থ্যাংস গিভিং নবান্নের উৎসব। 

লস এঞ্জেলেস প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিভিন্ন বাসায় বাড়িতে দলবদ্ধভাবে নানা আয়োজনে থ্যাংকসগিভিং উৎসবটি উদযাপন করে। -ছবিঃএকুশ

লস এঞ্জেলেস প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিভিন্ন বাসায় বাড়িতে দলবদ্ধভাবে নানা আয়োজনে থ্যাংকসগিভিং উৎসবটি উদযাপন করে। -ছবিঃএকুশ

ভিন্ন গল্পটার আমেজও ভিন্ন। কলোনিয়াল ইংরেজদের সাথে ন্যাটিভ ইন্ডিয়ানদের বন্ধুত্বের মধ্যদিয়ে উদযাপিত চারদিনব্যাপী উৎসবকেই আজকের দিনে থ্যাংকস গিভিং ডে বলা হয়।
মে ফ্লাওয়ার নামের জাহাজে করে ১৬২০ সালে ইংল্যান্ড থেকে ১০৬ সদস্যের ধর্মযাজক আমেরিকার দিকে রওনা হয় নতুন কোনও ভূখণ্ডে একটা চার্চ গঠন করে ধর্ম প্রচার করার উদ্দেশ্যে। ম্যসাচুসেটস এর প্লাইমাউথ যখন এসে পৌঁছায়  প্রচণ্ড প্রতিকূল আবহাওয়া ক্ষুধা রোগাক্রান্ত হয়ে তাদের অর্ধেক মারা যায় পথে। বাকি অর্ধেক প্লাইমাউথের নেটিভ আমেরিকান বা রেড ইন্ডিয়ানদের কাছে সাহয্য চায় বেঁচে থাকর জন্য। সেই ধর্ম যাজকেরা নেটিভ আমেরিকান বা রেড ইন্ডিয়ানদের সহযোগিতায় চাষাবাদকরে, মৎস্য শিকার করে এবং পরবর্তি বছর ১৬২১ সালের নভেম্বরে ভুট্টার বাম্পার ফলনের দেখা পায়। তারপর তাদের উৎপাদিত ফসল দিয়ে নেটিভদের আমন্ত্রণ করে পাহাড় জঙ্গল থেকে টার্কি শিকার করে চারদিন ব্যাপী এক ভোজ উৎসবের আয়োজনকরে।  ন্যাটিভদের সহযোগিতায় বেঁচে যাওয়ায় এবং  ন্যাটিভেদের টেরিটোরিতে চার্চ গঠনের অনুমতি পাওয়ায় তারা ন্যাটিভদের ধন্যবাদ জ্ঞ্যাপনের এই উৎসব আয়োজন করে বলেই এর নাম হয় থ্যাংকসগিভিং। এবং প্রথম উৎসবটা চারদিনব্যাপী ছিল বলেইএখনও বৃহস্পতি থেকে রবিবার চারদিনের লঙ হলিডে হিসাবেই প্রচলিত আছে। তখনকার দিনে প্লাইমাউথে টার্কির সহজলভ্যতা ছিল বলেই প্রথম উৎসবে টার্কি ভোজনের কারণেই আজও ট্র্যাডিশন হিসাবে টার্কি পার্টির প্রচলন রয়েছে।

লস এঞ্জেলেস প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিভিন্ন বাসায় বাড়িতে দলবদ্ধভাবে নানা আয়োজনে থ্যাংকসগিভিং উৎসবটি উদযাপন করে। -ছবিঃএকুশ

লস এঞ্জেলেস প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিভিন্ন বাসায় বাড়িতে দলবদ্ধভাবে নানা আয়োজনে থ্যাংকসগিভিং উৎসবটি উদযাপন করে। -ছবিঃএকুশ

আধুনিক কালে  এর সাথে অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড সম্পৃক্ত করা হয়েছে। থ্যাংকস গিভিং এর পরের দিনকে ব্ল্যাক ফ্রাইডে বলা হয়। এইদিন  আমেরিকার সারা  বছরের সর্বোচ্চ ক্রয় বিক্রয় হয়ে থাকে। এবং পরবর্তি একমাস অর্থাৎ আগামী ২৫ ডিসেম্বর ক্রিসমাসের দিন পর্যন্ত আমেরিকানরা হলিডে সিজন বলে। বস্তুত থ্যাংকস গিভিং ডে থেকেই আনুষ্ঠানিকভাবে হলিডে সিজন শুরু হয়।

মীথ যাই বলুক না কেন বিবর্তনের ধারায় থ্যাংকস গিভিং আজকের আমেরিকার অত্যন্ত জনপ্রিয় জাতীয় উৎসবে পরিগণিত হয়েছে। আমেরিকায় বসবাসকারি বাংলাদেশি আমেরিকানরাও পিছিয়ে নেই মুল ধারার আমেরিকার এই উৎসব উডযাপনের দিকথেকে। সে উপলক্ষে লস এঞ্জেলেস প্রবাসী বাংলাদেশিরাও বিভিন্ন বাসায় বাড়িতে ছোট বড় দলবদ্ধভাবে নানা আয়োজনে উৎসবটি উদযাপন করে।

আমেরিকানদের পাশাপাশি  নিউইয়র্কের বাংলাদেশীরাও ঐতিহাসিক “থ্যাঙ্কস গিভিং ডে”- পালন করলো
আমেরিকানদের পাশাপাশি বাংলাদেশীরাও ঐতিহাসিক “থ্যাঙ্কস গিভিং ডে”- পালন করলো জ্যাকসন্স হাইটস, এসটোরিয়া, ব্রুকলীন, লংআইল্যান্ড ও ব্রোনক্সসহ নিউজার্সি, পেনসেলভানিয়া, বোষ্টন, ভার্জিনিয়া, কানেকটিকাট, ম্যাসাচুসেটসসহ বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যে বাংলাদেশি ও মুসলমান মালিকানাধীন গ্রোসারির দোকানগুলোতে প্রচুর পরিমাণে হালাল টার্কি সংগ্রহ করা হয়েছে। গত তিন দিন ধরে উক্ত দোকানগুলোতে দেদারছে চলছে হালাল টার্কির বেচাকেনা। থ্যাংকস গিভিং ডে উপলক্ষে ৪ কোটি ৫০ লক্ষ জবাই হয়।

থ্যাংকস গিভিং ডে’র মূল উদ্দেশ্য, পরিবার, প্রতিবেশী, বন্ধুবান্ধবসহ সবাই একত্রিত হয়ে সবার জীবনের প্রতিটি সাফল্যের জন্য দেশ ও জাতির সাফল্যের জন্য ঈশ্বরকে ধন্যবাদ জানান। এমনই ভাবে গত শুক্রবারে ব্রংন্ক্সের বেশ কিছু বাংলাদেশী পরিবার একত্রিত হয়ে উৎসব মূখর পরিবেশে উৎযাপন করলো থ্যাংক্স গিভিং ডে।

ব্রংন্কসের ক্যাসেলহীল এভিনিউস্হ কমিউনিটির পরিচিত মুখ খলিলুর রহমান মুন্সী ও নুসরাত জাহনের বাসায় অনুষ্ঠিত হলো এই আয়োজনটি। এই আয়োজনে উপস্হিত ছিলেন সৈয়দা শামসুন নাহার, আব্দুস টমাস, সাইফুল্লাহ সাবের, তৈয়ব, আব্দুর রশিদ বাতেন, মুর্শেদা আখতার কাঁকন, নিগার সুলতানা টমাস, গুলশান চৌধুরী, কাজী রুবিনা বেগম, রেনু, বেবী মজুমদার, ফারহানা শাকের লীমা, শাকের সৈকত, রুবিনা আক্তার রুমা, শৈলী, প্রমি, ফারিহা, জাওয়াদ, রাজিন, মাহী, রিমন, তাহির, রামিম, আইজা প্রমুখ।

বিশাল আকারের টার্কি রোষ্ট ছিল খাবারের তালিকার মূল আইটেম। টার্কির পাশাপাশি ছিল দেশী বিদেশী প্রচুর মুখরোচক খাবারের খাবারের আয়োজন।
বৃহস্পতিবার ২৪শে নভেম্বর প্রতিবারের মতোই এবারও অনুষ্ঠিত হলো ওয়ার্ল্ড ফ্যামাস ডিপার্টমেন্টাল স্টোর ‘মেসিস’ এর ৯০তম থ্যাংকস গিভিংডে’র বর্ণাঢ্য প্যারেড। এই প্যারেডে অংশ নেয়ার জন্য অনেকেই মধ্যরাত থেকে জড়ো হতে থাকে প্যারেড স্থান ৭৭ স্ট্রিট থেকে ৩৪ স্ট্রিট আর সিক্স অ্যাভিনিউর উপর। সকাল ৯টায় এ প্যারেড শুরু হয় ৭৭নং স্ট্রিট থেকে সিক্স অ্যাভিনিউর উপর থেকে। ম্যানহাটনের সিক্স অ্যাভিনিউর উপর রাস্তায় মার্চ করে এই প্যারেড শেষ হয় হেরাল্ড স্কয়ারে ৩৪নং স্ট্রিট ‘মেসিস’ এর সামনে। এখানে এসে কিছুক্ষণ বিভিন্ন মহড়া দেয়া হয়।
শীতকে উপেক্ষা করে এবছর এই প্যারেডে প্রায় সাড়ে ৩ মিলিয়নেরও বেশী লোকের সমাগম ঘটে। পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ এবং আমেরিকার বিভিন্ন অঙ্গরাজ্য থেকে আসা বিপুল সংখ্যক পর্যটক এ প্যারেড দেখতে এসেছিলেন। টার্কি, কর্নেকোপিয়া, পামকিন, সান্তা ক্লজসহ প্রায় ২৪টি কার্টুন চরিত্র স্পাইডার ম্যান, ডোড়া, স্পঞ্জপাপ, টিনেজ মিউটন নিঞ্জা টারটেল, ডাইরি দ্যা উইম্পি কিডস, হ্যালো কিটি, মিকি মাউস, কুংফু পান্ডা, পল ফ্রেংক, মিনিয়েম, এডভেঞ্চার টাইম, কেডিফিলার, টমাস দ্যা ট্রেন, সুন্পি ইত্যাদি চরিত্রের বেলুন ছিল এবারের প্যারেডের অন্যতম আকর্ষণ। আমেরিকার অনেক বিখ্যাত সেলিব্রেটির উপস্থিতি ছিল মেসিস এর থ্যাংকস গিভিং প্যারেডের মূল আকর্ষণ।
16থ্যাঙ্কস গিভিং ডে’র সারাদিন আনন্দে কাটিয়ে সকলেই প্রস্তুত হয় পরেরদিন ‘থ্যাঙ্কস গিভিং সেল’ এর জন্য। ১৯৫১ সালে যুক্তরাষ্ট্রে থ্যাংকস গিভিং ডে- এরপর এবং বড় দিনের আগের শুক্রবারটি প্রথমবারের মতো লক্ষ লক্ষ মানুষ তাদের অফিস ও স্কুল থেকে ছুটি নেয় পুরোপুরি উৎসবের আমেজে দোকানে ভীর জমায় শপিং করার জন্য। এরপর থেকেই শপিং পাগল মানুষের কাছে এই দিনটি ব্ল্যাক ফ্রাইডে নামে পরিচিত।তাই প্রতি বছর বিশ্বব্যাপী শপিং প্রেমিকরা এই দিনটির জন্য অধির আগ্রহে অপেক্ষা করে থাকে। প্রতি বছর, আমেরিকায় থ্যাঙ্কস গিভিং সেল এর রমরমা ব্যবসা দেশটির অর্থনীতির সূচককাঁটা ঘুরিয়ে দেয়। ফলে থ্যাংঙ্কস গিভিং ডে’র ধর্মীয় ভাব গাম্ভীর্য অপেক্ষা বাণিজ্যিক দিকটাই বেশী প্রকাশিত হয়ে পরে।
বিদায়ী মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা হোয়াইট হাউসে তাঁর মেয়াদের শেষ থ্যাংকস গিভিং ডে পালন করছেন পারিবারিকভাবে। তবে প্রথা অনুযায়ী উৎসবের অন্যতম অনুষঙ্গ টার্কি ভোজ থেকে তিনি বিরত থেকেছেন।
অপরদিকে নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প দিবসটি পালনের জন্য ফ্লোরিডার পাম বিচে নিজের অবকাশকেন্দ্রে জড়ো হয়েছেন পরিবার নিয়ে। তিনি সব বিভেদ ভুলে গিয়ে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।  [ নিউ ইয়র্ক নিউজঃ তৈয়বুর রহমান টনি }

লস এঞ্জেলেস প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিভিন্ন বাসায় বাড়িতে দলবদ্ধভাবে নানা আয়োজনে থ্যাংকসগিভিং উৎসবটি উদযাপন করে। -ছবিঃএকুশ

লস এঞ্জেলেস প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিভিন্ন বাসায় বাড়িতে দলবদ্ধভাবে নানা আয়োজনে থ্যাংকসগিভিং উৎসবটি উদযাপন করে। -ছবিঃএকুশ

 

 

লস এঞ্জেলেস প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিভিন্ন বাসায় বাড়িতে দলবদ্ধভাবে নানা আয়োজনে থ্যাংকসগিভিং উৎসবটি উদযাপন করে। -ছবিঃএকুশ

লস এঞ্জেলেস প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিভিন্ন বাসায় বাড়িতে দলবদ্ধভাবে নানা আয়োজনে থ্যাংকসগিভিং উৎসবটি উদযাপন করে। -ছবিঃএকুশ

লস এঞ্জেলেস প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিভিন্ন বাসায় বাড়িতে দলবদ্ধভাবে নানা আয়োজনে থ্যাংকসগিভিং উৎসবটি উদযাপন করে। -ছবিঃএকুশ

লস এঞ্জেলেস প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিভিন্ন বাসায় বাড়িতে দলবদ্ধভাবে নানা আয়োজনে থ্যাংকসগিভিং উৎসবটি উদযাপন করে। -ছবিঃএকুশ

লস এঞ্জেলেস প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিভিন্ন বাসায় বাড়িতে দলবদ্ধভাবে নানা আয়োজনে থ্যাংকসগিভিং উৎসবটি উদযাপন করে। -ছবিঃএকুশ

লস এঞ্জেলেস প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিভিন্ন বাসায় বাড়িতে দলবদ্ধভাবে নানা আয়োজনে থ্যাংকসগিভিং উৎসবটি উদযাপন করে। -ছবিঃএকুশ

লস এঞ্জেলেস প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিভিন্ন বাসায় বাড়িতে দলবদ্ধভাবে নানা আয়োজনে থ্যাংকসগিভিং উৎসবটি উদযাপন করে। -ছবিঃএকুশ

লস এঞ্জেলেস প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিভিন্ন বাসায় বাড়িতে দলবদ্ধভাবে নানা আয়োজনে থ্যাংকসগিভিং উৎসবটি উদযাপন করে। -ছবিঃএকুশ

লস এঞ্জেলেস প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিভিন্ন বাসায় বাড়িতে দলবদ্ধভাবে নানা আয়োজনে থ্যাংকসগিভিং উৎসবটি উদযাপন করে। -ছবিঃএকুশ

লস এঞ্জেলেস প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিভিন্ন বাসায় বাড়িতে দলবদ্ধভাবে নানা আয়োজনে থ্যাংকসগিভিং উৎসবটি উদযাপন করে। -ছবিঃএকুশ

লস এঞ্জেলেসে থ্যাংকসগিভিং উৎসব

লস এঞ্জেলেসে থ্যাংকসগিভিং উৎসব

লস এঞ্জেলেস প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিভিন্ন বাসায় বাড়িতে দলবদ্ধভাবে নানা আয়োজনে থ্যাংকসগিভিং উৎসবটি উদযাপন করে। -ছবিঃএকুশ

লস এঞ্জেলেস প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিভিন্ন বাসায় বাড়িতে দলবদ্ধভাবে নানা আয়োজনে থ্যাংকসগিভিং উৎসবটি উদযাপন করে। -ছবিঃএকুশ

লস এঞ্জেলেস প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিভিন্ন বাসায় বাড়িতে দলবদ্ধভাবে নানা আয়োজনে থ্যাংকসগিভিং উৎসবটি উদযাপন করে। -ছবিঃএকুশ

লস এঞ্জেলেস প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিভিন্ন বাসায় বাড়িতে দলবদ্ধভাবে নানা আয়োজনে থ্যাংকসগিভিং উৎসবটি উদযাপন করে। -ছবিঃএকুশ

লস এঞ্জেলেস প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিভিন্ন বাসায় বাড়িতে দলবদ্ধভাবে নানা আয়োজনে থ্যাংকসগিভিং উৎসবটি উদযাপন করে। -ছবিঃএকুশ

লস এঞ্জেলেস প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিভিন্ন বাসায় বাড়িতে দলবদ্ধভাবে নানা আয়োজনে থ্যাংকসগিভিং উৎসবটি উদযাপন করে। -ছবিঃএকুশ

লস এঞ্জেলেস প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিভিন্ন বাসায় বাড়িতে দলবদ্ধভাবে নানা আয়োজনে থ্যাংকসগিভিং উৎসবটি উদযাপন করে। -ছবিঃএকুশ

লস এঞ্জেলেস প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিভিন্ন বাসায় বাড়িতে দলবদ্ধভাবে নানা আয়োজনে থ্যাংকসগিভিং উৎসবটি উদযাপন করে। -ছবিঃএকুশ

লস এঞ্জেলেস প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিভিন্ন বাসায় বাড়িতে দলবদ্ধভাবে নানা আয়োজনে থ্যাংকসগিভিং উৎসবটি উদযাপন করে। -ছবিঃএকুশ

লস এঞ্জেলেস প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিভিন্ন বাসায় বাড়িতে দলবদ্ধভাবে নানা আয়োজনে থ্যাংকসগিভিং উৎসবটি উদযাপন করে। -ছবিঃএকুশ

লস এঞ্জেলেস প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিভিন্ন বাসায় বাড়িতে দলবদ্ধভাবে নানা আয়োজনে থ্যাংকসগিভিং উৎসবটি উদযাপন করে। -ছবিঃএকুশ

লস এঞ্জেলেস প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিভিন্ন বাসায় বাড়িতে দলবদ্ধভাবে নানা আয়োজনে থ্যাংকসগিভিং উৎসবটি উদযাপন করে। -ছবিঃএকুশ

লস এঞ্জেলেস প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিভিন্ন বাসায় বাড়িতে দলবদ্ধভাবে নানা আয়োজনে থ্যাংকসগিভিং উৎসবটি উদযাপন করে। -ছবিঃএকুশ

লস এঞ্জেলেস প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিভিন্ন বাসায় বাড়িতে দলবদ্ধভাবে নানা আয়োজনে থ্যাংকসগিভিং উৎসবটি উদযাপন করে। -ছবিঃএকুশ

লস এঞ্জেলেস প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিভিন্ন বাসায় বাড়িতে দলবদ্ধভাবে নানা আয়োজনে থ্যাংকসগিভিং উৎসবটি উদযাপন করে। -ছবিঃএকুশ

লস এঞ্জেলেস প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিভিন্ন বাসায় বাড়িতে দলবদ্ধভাবে নানা আয়োজনে থ্যাংকসগিভিং উৎসবটি উদযাপন করে। -ছবিঃএকুশ

লস এঞ্জেলেস প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিভিন্ন বাসায় বাড়িতে দলবদ্ধভাবে নানা আয়োজনে থ্যাংকসগিভিং উৎসবটি উদযাপন করে। -ছবিঃএকুশ

লস এঞ্জেলেস প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিভিন্ন বাসায় বাড়িতে দলবদ্ধভাবে নানা আয়োজনে থ্যাংকসগিভিং উৎসবটি উদযাপন করে। -ছবিঃএকুশ

লস এঞ্জেলেস প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিভিন্ন বাসায় বাড়িতে দলবদ্ধভাবে নানা আয়োজনে থ্যাংকসগিভিং উৎসবটি উদযাপন করে। -ছবিঃএকুশ

লস এঞ্জেলেস প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিভিন্ন বাসায় বাড়িতে দলবদ্ধভাবে নানা আয়োজনে থ্যাংকসগিভিং উৎসবটি উদযাপন করে। -ছবিঃএকুশ

লস এঞ্জেলেস প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিভিন্ন বাসায় বাড়িতে দলবদ্ধভাবে নানা আয়োজনে থ্যাংকসগিভিং উৎসবটি উদযাপন করে। -ছবিঃএকুশ

লস এঞ্জেলেস প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিভিন্ন বাসায় বাড়িতে দলবদ্ধভাবে নানা আয়োজনে থ্যাংকসগিভিং উৎসবটি উদযাপন করে। -ছবিঃএকুশ

লস এঞ্জেলেস প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিভিন্ন বাসায় বাড়িতে দলবদ্ধভাবে নানা আয়োজনে থ্যাংকসগিভিং উৎসবটি উদযাপন করে। -ছবিঃএকুশ

লস এঞ্জেলেস প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিভিন্ন বাসায় বাড়িতে দলবদ্ধভাবে নানা আয়োজনে থ্যাংকসগিভিং উৎসবটি উদযাপন করে। -ছবিঃএকুশ

 

 

 


  

সর্বশেষ সংবাদ

Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.