নীরবে চলে গেলেন বীর মুক্তিযাদ্ধা, স্বাধীন বাংলা বেতারের কন্ঠশিল্পী মন্জুর আহমেদ

August 23, 2017 9:36 pmComments Off on নীরবে চলে গেলেন বীর মুক্তিযাদ্ধা, স্বাধীন বাংলা বেতারের কন্ঠশিল্পী মন্জুর আহমেদViews: 25
Print Friendly and PDF
FaceBook YouTube

নীরবে চলে গেলেন লস এন্জেলেস শহরে হাসিমাখানো মুখের একজন বীর মুক্তিযাদ্ধা, স্বাধীন বাংলা বেতারের কন্ঠশিল্পী ও সংগীত পরিবারের সদস্য মন্জুর আহমেদ ( দিপু) । 
আমরা সকলে ‘মন্জুর ভাই’ বলে ডাকতাম। উনি অসুস্হ জানতাম, তবে ভেবেছিলাম তিনি সুস্হ হয়ে যাবেন । জীবনের অনেকটা কাল তিনি বসবাস করেছেন লস এন্জেলেস শহরে। অংশ নিয়েছেন লস এন্জেলেস ও আসে পাশের শহরগুলোতে বিভিন্ন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে । আজ ওঁনার বড় ভাই মনসুর আহমেদ (নিপু ) ভাইয়ের ফেইসবুকে সংবাদটি দেখে একেবার থমকে গেছি ।

চমৎকার পিয়ানো বাজাতে পারতেন আমাদের মন্জুর ভাই । এ মূহুর্তে মনে পড়ছে, লস এন্জেলেস শহরে নামী-দামী রেস্টুরেন্ট এলাকা নামে পরিচিত ‘লা সিয়েনেগা’ সড়কের ওপর ‘গে-লর্ড’ নামে এক অভিজাত রেস্টুরেন্টে একসময় তিনি নিয়মিত পিয়ানো বাজাতেন । একবার আমার সংগে দেখা হলে বলেছিলেন ” জিতু ভাই ‘গে-লর্ড’- এ আপনার আমন্ত্রণ রইলো- চলে আসবেন সময় করে ?” সুযোগ হয়েছিলো আমার- ওই রেস্টুরেন্টে যাবার। রেস্টুরেন্টের ভেতরে মূল জায়গাটিতে একটি প্লাটফরমের ওপর সাদা চকচকে দামী গ্র্যান্ড পিয়ানো বসানো ছিলো । রেস্টুরেন্টে যারা খাবার ক্ষেতে আসতেন -তাঁদের মনোরঞ্জনের জন্য পিয়ানোর সূরের ঝংকার তুলতেন মন্জুর ভাই-তাঁর যাদুকরী হাতের ছোঁয়ায়।

একদিন চমকে দিয়ে উপস্হিত হলাম লস এন্জেলেস শহরের রেস্টুরেন্ট এলাকা নামে সুপরিচিত ‘লা সিয়েনেগা বুলেভার্ড ‘ রাস্তায় অবস্হিত ‘গে-লর্ড’ রেস্টুরেন্টে । মন্জুর ভাই আমাকে দেখেতো খুবই খুশী হলেন । আমাকে ভীষণ সম্মান করতেন তিনি । যদিও আমি নিজেকে , সে যোগ্যতার মাপকাঠিতে কখনো মূল্যায়ন করিনি। বিটিভি-র হানিফ সংকেতের ‘ইত্যাদি’ অনুষ্ঠানে আমার প্রতিবেদনের প্রায়শ: প্রশংসা করতেন তিনি। ভীষণ অমায়িক প্রকৃতির মানুষ ছিলেন তিনি। যাহোক, দেখলাম রেস্টুরেন্ট খুলতে এখনো কিছুটা সময় বাকী ।

মুখে স্মিত হাসি , সুন্দর কালো স্যুট আর সাদা সার্ট , চোখে কালো ফ্রেমের চশমা পরিহিত অবস্হায় মনজুর ভাই বললেন ‘আসুন আমার সংগে’ – এই কথা বলে নিয়ে গেলেন পিয়ানোর সামনে । দেখে মনে হলো একজন পেশাধারী পিয়ানো বাদক যেনো আমার সামনে দাঁড়িয়ে আছে ।

সম্ভবত: ”ইয়ামাহা’ সাদা চকচকে একটি গ্র্যান্ড পিয়ানো ছিলো, যার সামনে রাখা ছোট্ট একটি বসার আসনে তিনি বসলেন। আমার দিকে তাকিয়ে বললেন – ‘কোন গানটি বাজাবো?’ আমি বললাম ‘আপনার পছন্দের যে কোন একটা হতে পারে?’ তিনি পিয়ানোতে প্রথমেই বাজালেন ‘পূর্ব দিগন্তে সূর্য উঠেছে’ গানের সুর আর গেয়ে শোনালেন কয়েকটি আধুনিক গান । তন্ময় হয়ে ওঁনার বাজানো পিয়ানোর সূর আর গান শুনে মুগ্ধ হলাম । কথা প্রসংগে জানা গেলো , স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের কিছু স্মৃতি কথা আর পিয়ানোর একটি একক এ্যলবাম রয়েছে সে কথা। এরপর যখনই সুযোগ হয়েছে আমার চেস্টা করেছি – আমাদের অন্চলে বেশ কিছু মন্চ অনুষ্ঠানে মন্জুর ভাইকে দিয়ে অনুষ্ঠান করার ।

আমি একসময় ‘আমেরিকা বাংলাদেশ’ শিরোনামে ‘এটিএন বাংলা’-র জন্য স্বাধীনতার ওপর একটি টেলিভিশন অনুষ্ঠান নির্মানের জন্য তখন স্ক্রিপ্ট তৈরী ও পরিকল্পনার কাজে ব্যস্ত । অনুষ্ঠানের উপকরণ খুঁজছিলাম, বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে প্রবাসী বাংলাদেশীদের দিয়ে অনুষ্ঠান নির্মান করার । মন্জুর ভাইয়ের সাথে কথা বলার পর স্বাধীনতার ওপর অনুষ্ঠান তৈরী করার জন্য -এর চাইতে উৎকৃষ্ট উপকরণ আর কি হতে পারে ? মন্জুর ভাইকে আমার টেলিভিশন অনুষ্ঠান নির্মাণের পরিকল্পনার কথা তাৎক্ষনিক জানালাম । তিনি সানন্দে রাজী হলেন এবং শুটিংয়ের জন্য আমাদের ‘গে-লর্ড’ রেস্টুরেন্ট ও পিয়ানো ব্যবহার করার জন্য মালিকের কাছ থেকে অনুমতি আদায় করে দিলেন ।

অনুষ্ঠানে মন্জুর ভাইয়ের স্বাধীন বাংলা বেতারের স্মৃতিকথা নিয়ে একটি সাক্ষাৎকার আমার উপস্হাপনাতে
রেকর্ড করার সুযোগ হয় । ওই অনুষ্ঠানে টেলিভিশন দর্শক-শ্রোতাদের জন্য পিয়ানোতে মন্জুর ভাই বাজিয়ে শোনান ‘পূর্ব দিগন্তে সূর্য উঠেছে’ এ জনপ্রিয় গানটির সূর । খুব প্রশংসিত হয়েছিলো মন্জুর ভাইয়ের পিয়ানো বাজনার আর তাঁর দেয়া সাক্ষাৎকার। আলোচনায় জানা গেলো তথ্যবহুল স্বাধীন বাংলা বেতারের অনেক অজানা কথা ।

মন্জুর আহমেদ ( দিপু ) ছিলেন একজন প্রখ্যাত সংগীত পরিবারের সদস্য । এক ভাই মনসুর আহমেদ ( নিপু ), সত্তরের দশকের জনপ্রিয় পপ-রক ব্যান্ড ‘স্পন্দন শিল্পী গোষ্ঠী’-র প্রতিষ্ঠাতা, অপর ভাই নাসির আহমেদ ( অপু ) যিনি লস এন্জেলেসের একজন প্রবাসী বাংলাদেশী পেশায় একজন দন্ত চিকিৎসক। কিন্তু এর বাইরেও সবচেয়ে বড় পরিচয়- নাসির আহমেদ ( অপু ) সত্তর দশকের ‘স্পন্দন শিল্পী গোষ্ঠী’র সহ-প্রতিষ্ঠাতা এবং স্পন্দন’র একমাত্র গীতিকার, সুরকার ও কন্ঠশিল্পী। যার লেখা গানগুলোর মধ্যে রয়েছে ‘এমন একটা মা দেনা’, ‘সাঁজিয়ে গুজিয়ে দে মোরে’, একটা চাবী মাইরা দিছে ছাইরা’, পাগলার মন নাচাইয়া’, ‘স্মৃতির সেই পটে আজও’, এই মনটারে ডানা মেলে দিয়েছি’ ইত্যাদি অসংখ্য জনপ্রিয় হিট পপ গান । আর বোন রীনা আহমেদ- একজন জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী এবং সংগ্রহে রয়েছে বেশ কিছু একক গানের এ্যলবাম । তিনি বসবাস করেন নিউ ইয়র্ক শহরে ।

মন্জুর ভাই আমাদের সকলকে ছেড়ে হঠাৎ এ পৃথিবী থেকে বিদায় নিয়েছেন । যতদিন তিনি বেঁচে ছিলেন, তিনি চেস্টা করেছেন তাঁর মেধা আর পরিশ্রম দিয়ে লস এন্জেলেস প্রবাসী বাংলাদেশীদের আমাদের কৃস্টি আর সংস্কৃতি বিকাশের জন্য কাজ করার । আমরা লস এন্জেলেস ও আশেপাশের প্রবাসী বাংলাদেশীরা কোনদিনই ভূলবোনা মন্জুর ভাইয়ের তাঁর সেই রেখে যাওয়া সাংস্কৃতিক অংগনে সেসব পদচিহ্নের কথা ।

দোয়া করি আল্লাহর কাছে তাঁর বিদেহী আত্মার শান্তির জন্য । মিনতি করি মহান আল্লাহ যেনো মন্জুর ভাইকে বেহেস্তের সর্বোচ্চ আসনে তাঁকে অধিষ্ঠিত করেন । আমিন ।

– সাইফুর রহমান ওসমানী জিতু
– ঢাকা ।

zeenat Khan Inna Liilah i ….Rajeun …..May Allah grant him the highest Jannat ….Ameen !
Ronny Islam জিতু , মনজুর ভাই না ফেরার দেশে চলে গেছেন এটা ভাবলেই কষ্ট হয় ! সপ্তা তিনেক আগে ওনাকে হসপিটালে দেখতে গিয়েছিলাম ! আমাকে দেখে অনেক খুশি হলেন , কি যেন বলতে চাইলেন বুজতে পারিনি ! অনেক অনুষ্ঠান করেছি তাকে নিয়ে ! এতো দ্রুত চলে যাবেন বুঝিনি ! আল্লাহ রাব্বুল আলামিন যেনো মনজুর ভাইকে শান্তিতে রাখেন !
Mobarak Hussain Dosto Jeetu , excellent write up on Dipu Bhai ! It’s hard to believe , He left us so quick ! The Nation has lost her greatest son , a Freedom Fighter . Years ago Dipu Bhai used to come to our house and used to play Homer’s piano and we all enjoyed . May Allah bless his departed soul and protect his family and loved ones . Amen … Ameen
Lucky Islam Rest in heaven. Ameen
Kamrul Hasan ঢাকার সোনারগাঁ হোটেলে মঞ্জু ভাই পিয়ানো বাজাতেন আমি তখন ক্যাশ কাউন্টারে কাজ করতাম,ক্যাশ কাউন্টার থেকে হাতের ডান পাশেই অর্থাৎ লবিতে ছিল পিয়ানো টেবিল,উনি যখন পিয়ানো বাজাতেন আমি কান পেতে শুনতাম,একদিন আমাকে ডেকে বললেন তুই লাঞ্চ টাইমে আমার সামনে বসবি তোকে একটা গান শুনাবো,শুনিয়েছিলেন “তীর হারা ঐ ঢেউয়ের সাগর পারি দিবরে”এখানে এসেও একসাথে কাজ করেছি কয়েকবছর,ভাবতেও পারছিনা জিতু ভাই তিনি নীরবে চলে গেলেন,আল্লাহ উনার বিদেহী আত্মাকে জান্নাতবাসি করুন,আমিন

Mithun Chowdhury মহান সৃর্ষ্টি কর্তার কাছে পার্থনা করি,এই গুনি শিল্পীকে তিনি যেন পরোপারের সর্ব্বো শ্রেষ্ট স্থানে অধিষ্টিত হন।
Mahtabuddin Tipu উনার মৃত্যুর সংবাদ শুনে খুব দু:খ পেলাম। আল্লাহ উনাকে বেহেস্ত নসীব করুন ,
ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন 
Shamsul Islam আমাদের অনেক প্রিয় মানুষ বীর মুক্তিযুদ্ধা শিল্পী মনজুর ভাইয়ের এভাবে অকালে চলে যাওয়া মেনে নিতে বড় কষ্ট হচ্ছে । বাংলার মুক্তিকামী মানুষের চেতনায় মনজুর ভাই বেঁচে থাকবেন অনন্তকাল ।

Kamal Moin So sorry to hear the demise of manzur bhai I knew him since the 70s as the very soft and humble hearted person that he was, also have fond memories of performing at the same time at Hotel Intercontinental in Dhaka, and whenever we met in LA. Condolences to the family, may Allah give his family the strength to get through this difficult time, Ameen.

বলতে কসট হচছে .তার পরও বলতে হচছে আমাদের সকলের প্রিয় মনজু ভাই আমাদের ছেরে চলে গেলেন আজ রাত তিনটায় . সাধিনতার সময়ের ও সাধিন বাংলা বেতারের ও জিংগা গোসটির মনজু ভাই . আসুন আমরা সবাই তার আত্তার মাগফেরাত কামনা করি …

লস এঞ্জেলেস প্রবাসী স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের সঙ্গীত শিল্পী মুক্তিযোদ্ধা মঞ্জুর আহমেদ আজ ২৩ আগস্ট ভোর ৩ টা বেজে ৩০ মিঃ এ গ্লেন্ডেলের একটি হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেছেন (ইন্না লিল্লাহে……………রাজেউন)। তাঁর মৃত্যুতে
ক্যালিফোর্নীয়া ষ্টেট আওয়ামী যুবলীগ গভীর শোকাহত। তাঁর মৃত্যুতে জাতি হারাল শ্রেষ্ঠ সন্তান।

ক্যালিফোর্নীয়া ষ্টেট আওয়ামী যুবলীগ মুক্তিযোদ্ধা শিল্পী মঞ্জুর আহমেদের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করে এবং কামনা করে তাঁর শোকাহত পরিবার পরিজনরা যেন দ্রুত এই শোক কাটিয়ে উঠতে পারে।

Khandakar Ahmed মহান মুক্তিযুদ্ধে উনার অবদান চির স্বরনীয় হয়ে থাকবে..মহান আল্লাহতালাহ উনাকে বেহেস্ত নসিব করুন..
আমিন..

Rahima Akhter One big brother, good friend and great person is gone for good . I can’t believe it. I pray for his soul and pray for his family to overcome of this great loss. May Allah bless everyone!

কথা হয়েছিলো, আসছে রবিবার লস্ এন্জেলস,ক্যালিফোর্নিয়ার সকল সঙ্গীত শিল্পীবৃন্দের উপস্হিতিতে রিয়া অডিটরিয়ামে মন্জুর ভাইয়ের সুস্থতা কামনা করে যে দোয়া মাহ্ফিলের আয়োজন করা হয়েছে সেখানে উপস্হিত হয়ে আল্লাহর কাছে মন্জুর ভাইয়ের আরোগ্য কামনা করবো,আমাদের সেই সুযোগটা না দিয়েই আজ সকাল ৬:০৫ মিনিটে মন্জুর ভাই চলে গেলেন,না ফেরার দেশে। (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজেউন)
আমরা সকল শিল্পীবৃন্দ এই মহান শিল্পীর রুহের মাগফিরাত কামনা করছি। হে আল্লাহ,মন্জুর ভাইকে বেহেস্তে নসীব করুন………. আমিন।

ইন্নালিল্লাহি ওয়াইন্নইলাহি রাজিউন,আমাদের সবা প্রাণপ্রিয় মন্জুর আহম্মেদ ভাই স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের সাংগঠনিক সম্পাদক ও মুক্তিযুদ্ধের কন্ঠসৈনিক গত ভোর ৩টা ৫মিনিটে সবাকে ফাঁকি দিয়ে না ফেরার দেশে চলে গেলেন।ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যের লসএঞ্জেলেস সংলগ্ন গ্লেনডেল সিটিতে এডভ্যান্টিস্ট মেডিক্যাল সেন্টারে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করেন,মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬৭ বছর। তিনি প্রোস্টেড ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়েছিলেন।মুক্তিযুদ্ধের সময়ে মঞ্জুর আহমেদের অনেক গান বাঙালিদের উজ্জীবিত করেছে। লস এন্জেলস প্রবাসী বাংলাদেশী শিল্পী ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তি বর্গদের পক্ষ থেকে বীর মুক্তিযোদ্ধা মঞ্জুর আহম্মেদের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করছি এবং মঞ্জু ভাইয়ের শোকাহত পরিবারকে সমবেদনা জ্ঞাপন করছি,আমিন

মন্জুর ভাইয়ের সাথে প্রথম অনুষ্ঠান ছিলো আমার পরিচালিত নাটক রুপবান , যার music director ছিলেন মন্জুর ভাই ১৯৯৬ সালে এবং শেষ অনুস্ঠান ২০১৬ তে আওয়ামী লীগের বিজয় দিবসে,আল্লাহ আপনার বেহেশ্থ নাসিব করুক

আমাদের সকলের প্রিয় মন্জু ভাই না ফেরার দেশে চলে গেলেন
মহান আল্লাহপাক উনাকে জান্নাতুল ফেরদৌস দান করুন
আমিন



সর্বশেষ সংবাদ

Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.