বাংলার বিজয় বহরের উদ্যোগে লস এঞ্জেলেসে উদযাপিত হল বিজয় দিবস-২০১৬

December 22, 2016 12:48 amComments Off on বাংলার বিজয় বহরের উদ্যোগে লস এঞ্জেলেসে উদযাপিত হল বিজয় দিবস-২০১৬Views: 190
Print Friendly and PDF
FaceBook YouTube

ের উদ্যোগে লস এঞ্জেলেসে উদযাপিত হল বিজয় দিবস-২০১৬

বাংলার বিজয় বহর

বাংলার বিজয় বহর লস এঞ্জেলেস ২০১৬ ছবি ঃ সুখেন্দ্র পাল

bbb0000১৮ ডিসেম্বর রবিবার লস এঞ্জেলেসে সাপ্তাহিক ছুটির দিনে উদযাপিত হল ের মুক্তিযুদ্ধের বিজয়ের ৪৫তম বার্ষিকী। ব্যাপক আনন্দ উচ্ছ্বাস উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে দিনব্যাপী দুই পর্বে উদযাপিত হয় বিজয় দিবস।

এটা ছিল বাংলার বিজয় বহরের সপ্তম আয়োজন একই সাথে লস এঞ্জেলস সিটি কর্তৃক স্বীকৃত বাংলাদেশিদের নেইবারহুড “লিটিল বাংলাদেশের” ছয় বছরে পদার্পনের বছর। এ উপলক্ষে গন প্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধান মন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ওয়াজেদ তাঁর প্রেরিত বাণীতে বিশ্বখ্যাত হলিউড এবং লস এঞ্জেলেস ডাউন টাউন এর মধ্যস্থিত বাংলাদেশি আমেরিকানদের উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত নেইবারহুড “লিটিল বাংলাদেশের” এর জন্য প্রশংসা করেন। তিনি বর্তমান সরকারের উন্নয়নের মহাসড়কে লিটিল বাংলাদেশের সাথে বাংলাদেশের সেতুবন্ধ রচনা করার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর প্রাক্তন উপদেষ্টা জনাব ডঃ মোদাচ্ছের আলী ঢাকা থেকে এসে বিজয় বহরে অংশগ্রহণ করেন এবং বিজয় বহরের বর্ণাঢ্য আয়োজন দেখে অভিভূত হন। লস এঞ্জেলস্থ বাংলাদেশ কনস্যুলেটের কন্সাল জেনারেল প্রিয়তোষ সাহা, ডেপুটি কন্সাল জেনারেল কাজী আনারকলি, কমার্শিয়াল কন্সাল আল মামুন উপস্থিত ছিলেন।bbb3প্রথম পর্বের বর্নাঢ্য মটর শোভাযাত্রা আরম্ভ হয় দুপুর ২টা ৩০ মিঃ এ। মেজর (অবঃ) সাইফ কুতুবীর নেতৃত্বে শ্যাটো রিক্রিয়েশন সেন্টার থেকে শুরু করে আমেরিকা বাংলাদেসের পতাকা শোভিত ও রং বেরঙের ব্যানার ফেস্টুনে সাজিয়ে শতাধিক গাড়ির এক বহর প্রায় মাইল তিনেক সড়ক ঘুরে আবার শ্যাটোতে এসে শেষ হয়। এ সময়ে লস এঞ্জেলেসের প্রাণ কেন্দ্রের এই সড়কগুলতে যানবাহন চলাচল পুরাপুরি বন্ধ করে রাখা হয়। লস এঞ্জেলেসের মেয়র এরিক গার্সেট্টি প্যারেডের উদ্বোধন করেন।

bbb1উদ্বোধনি বক্তব্যে এল এ সিটি মেয়র বলেন, ট্রাম্প প্রশাসনের ঘোষণা অনুযায়ী মুসলিম রেজিস্ট্রি ও ইমিগ্রান্ডদের উপর আনিত কোনও আইনে অংশ গ্রহন করবে না।

তিনি বাংলাদেশি আমেরিকানদের নিজস্ব পন্থায় শান্তিপূর্নভাবে অবস্থানের প্রশংসা করেন। প্যারেড শেষে সবাইকে লাঞ্চ সরবরাহ করা হয়।

বিজয় দিবস উদযাপন: ছবি – সুখেন্দু পাল

উৎসবের দ্বিতীয় পর্যায়ে ছিল সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। বিকাল পাঁচটায় শিশু কিশোরদের নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে আরম্ভ হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের পর্ব।

বিজয় দিবস উদযাপন: ছবি – সুখেন্দু পাল

শাহানা পারভিনের লেখা ও পরিচালনায় খন্ড নাটক, কাজি মশহুরুল হুদার আবৃত্তি, এবং জাহাঙ্গীর হোসেন, আদনান খান, উপমা সাহা মজুমদার, উর্মি আতাহার, মিতালী কাজল এবং লীজার সঙ্গীতে সাজান ছিল মনজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। এই পর্বের আনুষ্ঠানিকতায় উপস্থিত ছিলেন কংগ্রেস মেম্বার জুডি চ্যু । মুকাভিনয়ে বিশেষ অবদানের জন্য এ বছর বাংলার বিজয় বহরের পক্ষ থেকে বাংলাদেশের মুকাভিনয়ের পথিকৃৎ জনাব কাজি মশহুরুল হুদাকেইন্টারন্যাশনাল মাইমে আইকনএওয়ার্ড প্রদান করা হয়।

বাংলাদেশের মাইম জগতের সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব মূকাভিনয় যোদ্ধা কাজী মশহুরুল হুদাকে ৪৫তম বাংলাদেশের বিজয় দিবসে ‘বাংলার বিজয় বহর অব লস এঞ্জেলেস’’ ‘‘ইন্টারন্যাশনাল মাইম আইকন’’ এওয়ার্ড প্রদান করেছে। এওয়ার্ড প্রদান করেন, লস এঞ্জেলেস সিটি কাউন্সিলম্যন পল ক্রিকোরিয়ান।

লস এঞ্জেলেসে বিজয় দিবস উদযাপন: ছবি – সুখেন্দু পাল

মিথুন চৌধুরী ও শামসুন খান মনির সাবলীল উপস্থাপনায় গভীর রাত পর্যন্ত চলে এই আনন্দ উৎসব। অনুষ্ঠানস্থল শ্যাটো রিক্রিয়েশন সেন্টারের ভেতরে শাড়ি, অলংকারাদি, ঝাল মুড়ি ফুচকা সহ নানা রকমের খাবারের স্টলগুলতেও ছিল রম রমা বাণিজ্য।

bbb7উপস্থিত সবাইকে বাংলার বিজয় বহরের চেয়ারম্যান মুজিব সিদ্দিকী, চ্যান্সেলর ডাঃ সিরাজুল্লাহ, প্রেসিডেন্ট শামসুদ্দীন মানিক ও এই বছর বিজয় বহরের কনভেনর আবু হানিফা সহ মেলা কমিটির সবাই ধন্যবাদ জানান।

লস এঞ্জেলেসে বিজয় দিবস উদযাপন: ছবি – সুখেন্দু পাল

বাংলার বিজয় বহরের রীতি অনুযায়ী এবছরও একটি বর্নীল স্মরণিকা প্রকাশ করা হয়েছে। সাইফুল আলম চৌধুরী ও ফারহানা সাইদের সম্পাদনায় প্রকাশিত বর্নীল স্মরণিকাটি সম্পন্ন করতে সহযোগিতা করেন বৃত্তী চৌধুরী ও শাওন সাইফ। বাংলার বিজয় বহর

bbb-poster

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সাথে অন্যান্য ব্যক্তিদের ছবি নিয়ে বাংলার বিজয় বহরের ব্যানারটিকে কেন্দ্র করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তুমুল বিতর্কে জড়িয়ে পড়েছেন স্থানীয় ীরা।



সর্বশেষ সংবাদ

Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.