১৪ দিনের মধ্যে কাতার ছাড়ার নির্দেশ: মধ্যপ্রাচ্যের পাঁচটি দেশ কাতারের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করার ঘোষণা দিয়েছে

June 5, 2017 1:50 pmComments Off on ১৪ দিনের মধ্যে কাতার ছাড়ার নির্দেশ: মধ্যপ্রাচ্যের পাঁচটি দেশ কাতারের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করার ঘোষণা দিয়েছেViews: 15
Print Friendly and PDF
FaceBook YouTube

১৪ দিনের মধ্যে কাতার ছাড়ার নির্দেশ

এসব দেশের নাগরিকদের ১৪ দিনের মধ্যে কাতার ছাড়তে বলা হয়েছে। একই সঙ্গে সৌদি আরব, আরব আমিরাত এবং বাহরাইনে বসবাসরত কাতারিদেরও একই সময়ের মধ্যে এসব দেশ ছেড়ে যেতে বলা হয়েছে।

তবে মিসরও যদি একই রকম নিষেধাজ্ঞা জারি করে তাহলে সেটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ হবে। সাম্প্রতিক এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কাতারে এক লাখ আশি হাজার মিসরীয় নাগরিক বাস করছে। এদের মধ্যে বেশিরভাগ নির্মাণ শিল্পের পাশাপাশি প্রকৌশলী, চিকিৎসক এবং আইন পেশায় কর্মরত।

এই বিশাল কর্মী কাতার ছেড়ে চলে গেলে স্থানীয় এবং আন্তর্জাতিক কোম্পানিগুলো কঠিন সমস্যার মধ্যে পড়বে। মাত্র ২৭ লাখ মানুষের বসবাস আরব উপদ্বীপের উত্তর-পূর্বে অবস্থিত এই ছোট রাষ্ট্রে।

দেশের জাতীয় বিমান পরিবহন সংস্থা কাতার এয়ারওয়েজ এবং কাতারের আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যম আল-জাজিরার কারণেই মূলত কাতারকে মানুষ বেশি চেনে।

এছাড়া ২০২২ সালের বিশ্বকাপ আয়োজনের অধিকার অর্জন এবং বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় ফুটবল দলগুলোর মধ্যে অন্যতম বার্সেলোনাকে স্পন্সর করে কাতার বেশি জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে।

রাজধানী দোহার ব্যাপক আধুনিক উন্নয়নের মাধ্যমে অনেক বহুজাতিক কোম্পানিকে সেখানে অফিস খুলতে আকৃষ্ট করেছে দেশটি। ফলে ছয়টি দেশের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন হওয়ায় যে সংকট তৈরি হয়েছে তা অনেক কিছুকেই প্রভাবিত করতে পারে।

এছাড়া কাতারে এই মুহূর্তে কয়েকটি বড় নির্মাণ প্রকল্প চলছে। এর মধ্যে রয়েছে একটি নতুন বন্দর, মেডিকেল এলাকা, মেট্রো প্রকল্প এবং ২০২২ সালের ফুটবল বিশ্বকাপের জন্য আটটি স্টেডিয়াম।

নির্মাণ শিল্পের প্রয়োজনীয় উপকরণ যেমন, কনক্রিট এবং ইস্পাত জাহাজে আসলেও, স্থলপথ দিয়ে সৌদি আরব হয়েও আসে।

সীমান্ত বন্ধ হলে খাদ্যদ্রব্যের মত নির্মাণ উপকরণের দাম বৃদ্ধি পাবে এবং কাজ সময়মত শেষ করা কঠিন হয়ে যাবে। দীর্ঘ সময়ের জন্য আকাশপথ এবং স্থলপথ বন্ধ হলে বিশ্বকাপ প্রস্তুতির সময়সীমাও হুমকির মুখে পরতে পারে।

সৌদি আরবের নেতৃত্বে মধ্যপ্রাচ্যের পাঁচটি দেশ কাতারের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করার ঘোষণা দিয়েছে। এর ধারাবাহিকতায় আফ্রিকা ও দক্ষিণ এশিয়ার দুটি দেশও গতকাল একই ঘোষণা দেয়। পারস্য উপসাগরীয় অঞ্চলের এ কূটনৈতিক টানাপড়েন আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানি তেল ও গ্যাসের মূল্য প্রভাবিত করতে পারে। এছাড়া মধ্যপ্রাচ্যে বিমান যোগাযোগ ও এভিয়েশন ব্যবসায় ছন্দপতন হতে পারে। খবর রয়টার্স, এএফপি।

ইরান ইস্যুতে কাতারের নমনীয় মনোভাবের কারণে মধ্যপ্রাচ্যে সৌদি নেতৃত্বাধীন রাজনৈতিক ব্লক দেশটির বিরুদ্ধে এ পদক্ষেপ নিয়েছে। সৌদি সরকার গতকাল সকালে কাতারের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্কচ্ছেদের ঘোষণা দেয়। একই সঙ্গে সৌদি আরব ছেড়ে যেতে কাতারের কূটনীতিকদের ৪৮ ঘণ্টা ও সাধারণ নাগরিকদের ১৪ দিন সময় বেঁধে দেয়া হয়। সৌদি অ্যারাবিয়ান এয়ারলাইন্স কাতারে সব ধরনের ফ্লাইট পরিচালনা বন্ধের ঘোষণা দেয়।

সৌদি আরবের দেখাদেখি বাহরাইন, সংযুক্ত আরব আমিরাত ও মিসর একই ধরনের পদক্ষেপ নেয়। তিনটি দেশ কাতারের সঙ্গে কূটনৈতিক ও বিমান যোগাযোগ ছিন্ন করার ঘোষণা দেয়। দুবাইভিত্তিক এমিরেটস, ফ্লাইদুবাই ও আবুধাবিভিত্তিক ইতিহাদ এয়ারলাইন্স আজ থেকে কাতারে ফ্লাইট পরিচালনা বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে।

কাতার সরকার সে দেশের বিরুদ্ধে এমন পদক্ষেপকে ‘মিথ্যা প্রচারণার ফসল’ ও ‘অযৌক্তিক’ বলে অভিহিত করেছে। বিমান যোগাযোগ ছিন্নের পাল্টা ব্যবস্থা হিসেবে কাতার এয়ারওয়েজ সৌদি আরবসহ কয়েকটি দেশে ফ্লাইট পরিচালনা বন্ধের সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেছে।

সৌদি সরকারের নেতৃত্বে সমন্বিত এ কূটনৈতিক পদক্ষেপ মাথাপিছু আয়ে বিশ্বের শীর্ষ ধনী দেশ কাতারকে জল-স্থল- অন্তরীক্ষে বিচ্ছিন্ন করে ফেলেছে। পারস্য উপসাগরের তীরবর্তী ক্ষুদ্র দ্বীপ কাতারের একমাত্র স্থল সংযোগ রয়েছে সৌদি আরবের সঙ্গে। সৌদি সরকার কাতারের জন্য সীমান্ত বন্ধ করে দিয়েছে। এর ফলে কাতারে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য সংকটের আশঙ্কা করা হচ্ছে। গতকাল সন্ধ্যা নাগাদ কাতারের শপিংমলগুলোয় ক্রেতাদের উপচে পড়া ভিড়ের কথা জানা গেছে। সংকটের আশঙ্কায় সবাই সাধ্যমতো পণ্য ও সামগ্রী মজুদ করতে চাইছে।

সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত ও মিসর কাতারভিত্তিক টেলিভিশন চ্যানেল আল জাজিরার সম্প্রচার বন্ধ করে দিয়েছে। সৌদি কর্তৃপক্ষ রিয়াদে আল জাজিরার কার্যালয়ে তালা দিয়েছে। সংযুক্ত আরব আমিরাত সরকার আল জাজিরার সহযোগী চ্যানেল বেইন স্পোর্টসের সম্প্রচারও বন্ধ করে দিয়েছে।

বিশ্বে তরলীকৃত প্রাকৃতিক গ্যাসের বৃহত্তম সরবরাহকারক কাতার। এছাড়া দেশটি তেল রফতানিকারকদের জোট ওপেকেরও সদস্য। কাতারের সঙ্গে প্রতিবেশী দেশগুলোর সম্পর্কের টানাপড়েন তেল সরবরাহে বিঘ্ন ঘটাবে, এমন আশঙ্কায় গতকাল সকালেই অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের দাম ১ ডলার বেড়ে প্রতি ব্যারেল ৫০ ডলারে উঠে যায়। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে অবশ্য ব্যারেলপ্রতি মূল্য কমে ৪৯ ডলার ৬৪ সেন্টে নেমে আসে। কূটনৈতিক সংকটের কারণে কাতার সরকার ওপেকের উত্পাদন হ্রাসের সিদ্ধান্ত পরিপালন করবে না এবং বাজারে তেলের সরবরাহ বাড়বে, এমন ভাবনা থেকেই পণ্যটির মূল্য কমতে থাকে।

সৌদি আরবের নেতৃত্বে চার দেশের সিদ্ধান্ত অনুসরণ করে কাতারের সঙ্গে সম্পর্কচ্ছেদের ঘোষণা দিয়েছে ইয়েমেনের প্রেসিডেন্ট আবদে রাব্বো মানসুর হাদির সরকার। এর আগে, ইয়েমেনে বিদ্রোহী হুথিদের বিরুদ্ধে অভিযানরত সৌদি নেতৃত্বাধীন আরব জোট থেকে কাতারকে বাদ দেয়া হয়। ইয়েমেন থেকে কাতারের সৈন্য ও সামরিক সরঞ্জাম সরিয়ে নিতে বলা হয়েছে। লিবিয়ার পূবাঞ্চলের বিদ্রোহী সরকারের প্রধানমন্ত্রী হাফতার একই ঘোষণা দিয়েছেন। কাতারের সঙ্গে সম্পর্কচ্ছেদের মিছিলে আরো যোগ দিয়েছে দক্ষিণ এশিয়ার দেশ মালদ্বীপ।

বিভিন্ন সময় মিসর, সংযুক্ত আরব আমিরাত ও বাহরাইনে সরকারবিরোধী আন্দোলনকারীদের প্রতি কাতারের পরোক্ষ সমর্থন মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোর এ সিদ্ধান্তের পেছনে ভূমিকা রেখেছে। বিশেষত কাতারভিত্তিক চ্যানেল আল জাজিরায় ভিন্ন মতাবলম্বী রাজনীতিকদের সংবাদ প্রকাশ রিয়াদ থেকে কায়রো পর্যন্ত বিভিন্ন রাজধানীতে ক্ষমতাসীনদের গাত্রদাহের কারণ ছিল।

সাত দেশের একসঙ্গে সম্পর্কচ্ছেদের এ ঘটনা আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে কাতারের সম্মানহানির কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। এর ফলে সে দেশে ২০২২ সালের ফুটবল বিশ্বকাপ আয়োজনের প্রস্তুতি ব্যাহত হতে পারে।

সর্বশেষ সংবাদ

Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.