ফেস বুকের ইফতার ও আঃ মালেকের গল্প

June 6, 2017 5:36 pmComments Off on ফেস বুকের ইফতার ও আঃ মালেকের গল্পViews: 247
Print Friendly and PDF
FaceBook YouTube

ফেস বুকের ইফতার ও আঃ মালেকের গল্প:
– লস এঞ্জেলেস থেকে জাহান হাসান: 

পথশিশুদের নিয়ে পহেলা বৈশাখ উদযাপন

‘রাত ১১.৪২ মিনিটে মিরপুর পিএসসি কনভেনশন হল থেকে ফোন, আঃ মালেক ভাই আমাদের বিয়ের অনুষ্ঠানে প্রায় ২০০ লোকের খাবার অনুষ্ঠান শেষে অবশিষ্ট আছে। আপনারাই পারেন এই খাবারগুলোর ব্যবস্থা করে গরীবদের মাঝে বিলিয়ে দিতে। তাড়াতাড়ি আসেন।’ ঢাকার বিভিন্ন অনুষ্ঠানের উদ্বৃত্ব খাবার আর সময় মত বিক্রি না হওয়া খাদ্য সামগ্রীর বিতরনের জন্য এইভাবেই মধ্যরাতে মাঝে মাঝে কল আসতে থাকে মহাখালী রাওয়া কনভেনশন হল, পুরান ঢাকার বাহারি ইফতারী প্রস্তুতকারী ও অন্যান্যদের কাছ থেকে ঢাকা শহরের ক্ষুদ্র একজন ভ্রাম্যমান ব্যবসায়ী ময়মনসিংহের ের কাছে। অনেক বছর ধরেই নীরবে নিভৃতে শীত, গ্রীষ্ম, বর্ষা উপেক্ষা করে কঠিন ও ধৈর্য্যের প্রহর সাথে নিয়ে টঙ্গী, ঢাকা এয়ারপোর্ট রেলস্টেশনের আশেপাশে ও দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে দীর্ঘ ৭-৮ বছর ধরে ভাসমান দরিদ্র অসহায়দের পাশে এসে প্রতিনিয়ত দাড়াচ্ছেন স্বেচ্ছাশ্রমে উদ্ধুদ্ধ সহকর্মীদের নিয়ে এই

ফেসবুক ইফতারের আয়োজক মোঃ আঃ মালেক

ফেসবুক ইফতারের আয়োজক মোঃ আঃ মালেক

রমজানের সময় ফেসবুক নাগরিকদের সহযোগিতায় এখন ১০০-১৬০ জন ভাসমান জনগোষ্ঠিদের ইফতারী ও খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করে আসছেন তিনি নিয়মিত ভাবে।

রেল ষ্টেশন তার কর্মের প্রথম পছন্দ

‘আলহামদুলিল্লাহ। আজকে টঙ্গী রেলস্টেশনে ১৬০ টি ইফতারের প্যাকেট বিতরন করা হল ও ভাসমান গরীব রোজাদারদের মাঝে। আজকেও ইফতার আাইটেমে ছিল খেজুর, আপেল, কলা, ছুলাভুট, পিয়াজু, বেগুনী ও আলুর চপ। আজকে ইফতারের সমস্ত খরচ বহন করেছেন আমেরিকা প্রবাসী ফেসবুক বন্ধু ” খান এম আলী ভাই ” ‘- বিতরনের পর প্রতিদিন ছবি, ভিডিওসহ এইভাবেই তিনি তার ফেস বুক পেজে পোষ্ট করে থাকেন। ভুনা খিচুরী, গরুর মাংস, নাজিরশাল চালের সাদা ভাত, ডিম, মাল্টা, লিচু, চিকেন ফ্রাই, সালাদ, দই, মাম পানির বোতল সহ বিভিন্ন রকম খাবার আইটেম থাকে প্রতিদিন মেনুতে। আমেরিকা প্রবাসী ফেসবুক বন্ধু ইমাম কাজী কাইয়ুম, শান চৌধুরী, তারিকুল ইসলাম তুহীন, কবীর আহম্মেদ, লন্ডন প্রবাসী ফেসবুক বন্ধু হামিদ উল্লাহ, আবুল কালাম চৌধুরী, দুলাল আলম, ফরহাদ হোসেন টিপু, মোঃ লুৎফর রহমান, মাহবুবুল কাদের, জাকির আহমেদ, সৌদি প্রবাসী ফেসবুক বন্ধু পারভেজ ভুইয়া, সুইডেন প্রবাসী লিনা আহম্মেদ, জার্মানী থেকে ফয়সাল আলম স্বদেশ থেকে মেহেদী কাবুল, রোকনোজ্জামান, মহসিন মনির, আবুল বাসির, মহসীন খান, মোতাহার হোসেন, মোঃ তারেক সরকার, মোঃ তারিক সরকার, সেলিম আহমেদ, আকরাম নুর, শহীদুন আলম, রুবিনা আক্তার, ফারুক খলিল, জসিম আহমেদ, সাজ্জাদুর রহমান সহ নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অনেকেই নীরবে রোজাদার ও অভুক্তদের আহার ও দুস্থদের সাহায্য করে যাচ্ছেন।

এই প্রসঙ্গে লস এঞ্জেলেস প্রবাসী বিশিষ্ট সমাজকর্মী ও সংগঠক, বার্ষিক আনন্দমেলা অনুষ্ঠানের প্রধান খান মোহাম্মদ আলী বলেন, আমি অনেক দিন ধরেই মোঃ আঃ মালেককে ফেস বুকে অনুসরণ করে আসছিলাম। কিছুদিন আগে স্থানীয় বাংলাবাজারে বন্ধুদের সাথে আড্ডার সময় তার প্রসঙ্গ উঠে আসে। ভাবলাম আনন্দমেলায় তো আনন্দই করি, সাহিত্য সংষ্কৃতির প্রসারে অনেক শ্রম দেই, এই রমজানের মাসে দেশের সাধারন মানুষের মাধ্যমে কিছু পথশিশু ভাসমান লোকদের ইফতারী করাই। সাথে সাথেই মোঃ আঃ মালেকের ইনবক্সে ম্যাসেজ দিয়ে রিয়া মানি ট্র্যান্সফারের মাধ্যমে ডলার পাঠিয়ে দিই। তিনি পেয়ে আমার দেওয়া মেনূ থেকে ১৬০ জনকে ইফতারী খাওয়ান। আমি সত্যি মনে অনেক শান্তি অনুভব করছি। মোঃ আঃ মালেক ও ওয়াসিম মিলে প্রথমে যেভাবে ছোট্ট করে সেবাশ্রম শুরু করেছে তা এখন আস্তে আস্তে বিস্তৃতি লাভ করছে। সকল প্রবাসীদের সাধ্যমতো দান করতে তিনি আহ্বান জানান।

খান মোঃ আলীর ফেসবুক পাতা থেকে

খান মোহাম্মদ আলী বলেন, ইনশাআল্লাহ ফেসবুক বন্ধুদের সহযোগিতায় এবং ফেসবুক বন্ধুদের স্বেচ্ছাশ্রমে আমাদের এই পোগ্রাম পুরো রমজান মাস অব্যহত থাকবে। যে কেউ তাদের সাথে শরীক হতে পারেন। নিজ হাতে ইফতার খাওয়াতে পারেন অসহায় লোকদের।

তাদের সংগঠনের নাম – “সাথী” থেকে এখন আমরা “পারি”-তে রুপান্তরিত হয়ে দিনে দিনে কলেবর বেড়েই চলেছে। তার সাথে আছেন আবু তালেব, ডাঃ ফয়সাল, পারভেজ, শামীম সরদার, সাজেদুর রহমান মুন, ওয়াসীম খান, সহ ফেসবুক বন্ধু নাবীল, নাজমুল ও রাতুল এবং আরো অনেকে। রয়েছে হাজার হাজার ফেস বুক শুভানূধ্যায়ী যারা প্রতিনিয়ত এই গরুপকে উৎসাহ দিয়ে যাচ্ছেন।  রমজান মাস ছাড়াও প্রতি শুক্রবারে মোঃ আঃ মালেক তার সহকর্মীদের নিয়ে ৮০-১০০ জন পথশিশু ও ভাসমান অভূক্তদের খাবারের ব্যবস্থা করে থাকেন। ফেসবুক বন্ধুদের সহায়তায় ৮৭ টি পরিবার ও নিজস্ব পারিবারিক খরচে ৩২টি পরিবারের মাঝে স্থানীয় প্রসাশন, গন্যমান্য ব্যক্তি ও সাংবাদিকদের উপস্থিতিতে গরীব লোকদের হাতে রমজান সামগ্রী তুলে দিতে পারায় ফেস বুক সিটিজেনদের আন্তরিক ধন্যবাদ জানিয়েছেন মোঃ আঃ মালেক। তিনি বলেন, ‘আমার ফেসবুক বন্ধুদের দেওয়া গরীবের রমজানের ইফতার সামগ্রীগুলো আজকে পহেলা রমজানে বিতরন করলাম। ময়মনসিংহ জেলার ফুলপুর থানার গজন্দর, খড়িয়াপাড়া, মিচকিপাড়, দেওখালী গ্রামের গরীব লোকগুলো আজকে পহেলা রমজানে তৃপ্তির সহিত ইফতার করেছে। আমার ফেসবুক বন্ধুরা দুরে থেকেও পাচ্ছে মনের ও আত্মার তৃপ্তি। আমি দেখছি ক্লান্ত মুখের এক চিলতে হাসি আর অন্তরের অন্তঃস্থল থেকে একটু শান্তি ও দেহমনের বিশাল শক্তি। যে শক্তি আমার সামনের কোন কাজে সহায়ক হবে।’ উল্লেখ্য গত শীতে কুড়িগ্রাম জেলার নাগেশ্বরী থানার দুর্গম নুনখাওয়া ও ভিতরবন্দ এলাকায় সত্যিকার অসহায় শীতার্থদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করেছে এই গ্রুপ। তাছাড়া মোঃ আঃ মালেকের গ্রুপ কর্মহীন অসহায় মানুষদের বিভিন্নভাবে সাহায্য করে যাচ্ছে। পথশিশুদের নিয়ে উদযাপন করেছে পহেলা বৈশাখ। 

মোঃ আঃ মালেকের আদর্শ নীতিবাক্য হচ্ছে – ‘হাদিসে আছে তুমি ডানহাতে দান কর যেন বাম হাত না জানে। আবার হাদিসে এটাও আছে , যে মানবিক কাজটা একার করা সম্ভব নয়, দশজনের দরকার সেখানে তুমি আগে শুরু কর এবং ঐ দশজনকে দেখিয়ে কর যেন তারাও এগিয়ে আসে ( সহিহ বুখারী ৬৭২ নং হাদিস )। ‘

‘আমার ফেসবুক বন্ধুরাই পৃথিবীর সেরা ফেসবুক ব্যবহারকারী , যাদের মাধ্যমে প্রতিনিয়ত অসহায় মানুযগুলো সেবা পেয়ে যাচ্ছে। সবাইকে শেয়ার করে দেখিয়ে দিন আমরা ” পারি “। আমি ফেসবুক ব্যবহার করে সমাজের অসহায় মানুযগুলোর বাস্তব চিত্র তুলে ধরার চেষ্টা করি। আমি পথ চলি শহরের ফুটপাতে, কোন গ্রামে কিংবা গঞ্জে। তীক্ষ্ণ দৃষ্টি থাকে আমার আশ পাশের অসহায় মানুযগুলোর প্রতি। অসহায় মানুযগুলোর করুন চিত্র আমি আমার বন্ধুদেরকে জানাই। দেশ বিদেশের বন্ধুরা আমার ডাকে সাড়া দিয়ে অসহায় মানুযগুলোর জন্য সহায়তার হাত বাড়ান। আমি আমার বন্ধুদের আমানতগুলো যথাযথ কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে অসহায় মানুযের হাতে তুলে দিয়ে তাদের মুখে হাসি ফুটাতে চেষ্টা করি। কোন একটি অসহায় মানুযের মুখে হাসি ফুটাতে চেষ্টা করি। প্রচুর শরীরে ঘাম ঝড়ে, ক্লান্ত দেহের তৃপ্তি নিয়ে ঘরে ফিরি আমি। তখন আমি অনুভব করি আমিই পৃথিবীর সেরা সুখি মানুয —— আঃ মালেক।’

যে কেউ মোঃ আঃ মালেকের সাথে শরীক হতে পারেন নগদ অর্থ বা যে কোন পন্য সামগ্রী দিয়ে। ইচ্ছা করলে আপনি একাই বহন করতে পারেন যে কোন এক বা একাধিক পরিবারের সম্পুর্ন ইফতার সামগ্রীর খরচ অথবা গড়ে দিতে পারেন কোন দুস্থ অসহায় মানুষের কর্মের হাতিয়ার বা হাসি ফোটাতে পারেন আসছে ঈদে কোন পথশিশুর জন্য নতুন জামা দিয়ে। ডোনেশন পাঠানোর আগে মোঃ আঃ মালেকের সাথে যোগাযোগ করে নেবেন।
যোগাযোগ বা সহায়তা পাঠানোর ঠিকানাঃ মোঃ আঃ মালেক, বাড়ী#১২, রোড#৩৩, সেক্টর#০৭, উওরা – ঢাকা
01766 583646, 01752 737817 – বিকাশ পারসোনাল,
রিয়া ও ওয়েষ্টার্ণ ইউনিয়ন MD. Abdul Malek
ফেস বুকঃ https://www.facebook.com/hawker.malek

সর্বশেষ সংবাদ

Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.