শিল্পের স্বীকৃতি পেল আবৃত্তি

December 27, 2013 3:03 amComments Off on শিল্পের স্বীকৃতি পেল আবৃত্তিViews: 11
Print Friendly and PDF
FaceBook YouTube

শিল্পের স্বীকৃতি পেল আবৃত্তি

দীপন নন্দী : অবশেষে শিল্পের স্বীকৃতি পেল আবৃত্তি। আবৃত্তিশিল্পীদের দুই দশকেরও অধিক সময়ের আন্দোলন শেষে শিল্পকলা একাডেমির সংগীত ও নৃত্যকলা বিভাগের সঙ্গে আগামী ১০ ডিসেম্বর থেকে সংযুক্ত হচ্ছে আবৃত্তি। ওইদিন থেকে এই বিভাগটির নতুন নামকরণ হবে সংগীত, নৃত্য ও আবৃত্তি বিভাগ হিসেবে। গত মাসে সরকারি এক আদেশের মাধ্যমে সংগীত ও নৃত্যকলা বিভাগের সঙ্গে আবৃত্তিকে সংযুক্ত করা হয়।

এ প্রসঙ্গে সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক আবৃত্তিশিল্পী হাসান আরিফ বর্তমানকে বলেন, ‘আমাদের দীর্ঘদিনের আন্দোলনের ফসল হিসেবে আবৃত্তি শিল্প হিসেবে স্বীকৃতি পেল। এর মাধ্যমে বলতে পারি, জনগণের আশার প্রতিফলন ঘটল রাষ্ট্রের স্বীকৃতিতে। একই আবৃত্তিকে বিভাগ হিসেবে সংযুক্ত করায়, এ শিল্পের আরও উত্তরণ ঘটবে আশা করি।’

শিল্পকলা একাডেমি সূত্রে জানা যায়, ১৯৯২ সালে প্রথম আনুষ্ঠানিকভাবে শিল্পকলা একাডেমিতে আবৃত্তিকে আলাদা একটি বিভাগ হিসেবে সংযুক্ত করার জন্য প্রস্তাব পেশ করা হয়। বাংলাদেশ আবৃত্তি সমন্বয় পরিষদের উদ্যোগে এ প্রস্তাব দেয়া হয়। এরপর এ প্রস্তাবটি শিল্পকলা একাডেমির এক টেবিল থেকে অন্য টেবিলে ঘুরতে থাকে। এরপর ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় এলে তত্কালীন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের কাছে পুনরায় আবৃত্তিকে আলাদা বিভাগ হিসেবে সংযুক্ত করার দাবি পেশ করা হয়। সে সময় মন্ত্রী বলেন, আবৃত্তিকে আলাদা বিভাগ করতে হলে বিষয়টি দীর্ঘসূত্রতার মধ্যে পড়তে পারে। কারণ এক্ষেত্রে সরকারের অর্থ, জনপ্রশাসন ও সংস্কৃতি— তিন মন্ত্রণালয়ের আমলাতান্ত্রিক জটিলতা রয়েছে। সেজন্য তিনি শিল্পকলার অন্য কোনো বিভাগের সঙ্গে আবৃত্তিকে সংযুক্ত করার জন্য পরামর্শ দেন। এরপর ২০০১ থেকে ২০০৭ সাল পর্যন্ত বিএনপি-জামায়াত সরকারের সময়ে বিষয়টি এক প্রকার হারিয়ে যায়। পরবর্তী মহাজোট সরকার ক্ষমতায় আসার পর কামাল লোহানীকে শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক হিসেবে নিয়োগ দিলে বিষয়টি আবারও আলোচনায় আসে। ওবায়দুল কাদেরের কথামতো তিনি সংগীত ও নৃত্যকলা বিভাগের সঙ্গে আবৃত্তিকে সংযুক্ত করার সিদ্ধান্ত নেন।

এরপর শিল্পকলা একাডেমি পরিষদের কাছে এ প্রস্তাবটি পাস করার জন্য পেশ করা হয়। এরপর আবারও স্থবির হয়ে পড়ে বিষয়টি। অবশেষে গত জুন মাসে শিল্পকলা পরিষদ বিষয়টিকে অনুমোদন দেয় এবং গত মাসে সরকারি এক আদেশের মাধ্যমে শিল্পকলা একাডেমির সংগীত ও নৃত্যকলা বিভাগের সঙ্গে আবৃত্তিকে সংযুক্ত করা হয়।

আবৃত্তিকে আলাদা বিভাগ করার আন্দোলনের অন্যতম মুখ্য ভূমিকা পালনকারী আবৃত্তিশিল্পী রফিকুল ইসলাম বর্তমানকে বলেন, ‘এটা অনেকটা স্বপ্নপূরণের মতো। আবৃত্তিকে আলাদা বিভাগ করার মধ্য দিয়ে আমাদের দীর্ঘদিনের দাবির বাস্তবায়ন হলো। দীর্ঘদিন ধরে আন্দোলন করার পর আমি অনেকটাই আবেগ আপ্লুত।’

এদিকে আগামী ১০ ডিসেম্বর বর্ণাঢ্য এক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে শিল্পকলা একাডেমিতে আবৃত্তি বিভাগের উদ্বোধন করা হবে। ওইদিন সন্ধ্যায় জাতীয় সংগীত ও নৃত্যকলা কেন্দ্র মিলনায়তনে আবৃত্তি বিভাগের উদ্বোধন করবেন তথ্য ও সংস্কৃতিমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু। অনুষ্ঠানে থাকবে আবৃত্তির বিশেষ আয়োজন।

সূত্রঃ বর্তমান

সর্বশেষ সংবাদ

Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.