দেশে ঋণখেলাপি এক লাখ ২৮ হাজার ৭৫৮ জন

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত জানিয়েছেন, বর্তমানে দেশের রাষ্ট্রায়ত্ত, বেসরকারি, বৈদেশিক ও বিশেষায়িত ব্যাংকগুলোতে মোট ঋণখেলাপি এক লাখ ২৮ হাজার ৭৫৮ জন। আজ নবম জাতীয় সংসদের ১৮তম অধিবেশনে সংসদ সদস্য অপু উকিলের টেবিলে উত্থাপতি এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী সংসদকে এ তথ্য জানান।

অর্থমন্ত্রী বলেন, “রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলোর ঋণখেলাপির সংখ্যা ২৩ হাজার ৩৪৭, বেসরকারি ব্যাংকগুলোতে ৭৬ হাজার ৩৩১, বৈদেশিক ব্যাংকগুলোতে ১০ হাজার ২৫২ এবং বিশেষায়িত ব্যাংকগুলোতে এর সংখ্যা ১৮ হাজার ৮২৮।মন্ত্রী জানান, বর্তমানে খেলাপি ঋণবিষয়ক ২৬ হাজার ৫৭৯টি মামলা বিচারাধীন রয়েছে।

ঋণখেলাপির সংখ্যা বাড়ার কারণ প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, গ্যাস ও বিদ্যুতের সরবরাহের সংকটের কারণে কোনো কোনো প্রকল্প বন্ধ হওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে ঋণ পরিশোধ করতে না পারা, ব্যবসায়ে মন্দা, ক্ষেত্রবিশেষে শ্রমিক ধর্মঘট, রপ্তানি আদেশ বাতিল, সময়মতো পণ্য রফতানি না হওয়া, বৃহদাঙ্ক ঋণ শ্রেণীকৃত হওয়া, আমদানি পণ্যের বিপরীতে ঋণের টাকা যথাসময়ে পরিশোধ না করা এবং আদালতের মাধ্যমে মামলা নিষ্পত্তিক্রমে ঋণ আদায়ে দীর্ঘসূত্রতার কারণে এমনটি হয়েছে।সংসদ সদস্য শাম্মী আক্তারের এক প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী বলেন, “বাংলাদেশের অর্থনীতির বর্তমান অবস্থা মোটেও বেহাল নয়। বরং বৈদেশিক মন্দার ভেতরেও গত পাঁচ বছরে জিডিপির গড় প্রবৃদ্ধির পরিমাপে বাংলাদেশ বিশ্বের মধ্যে সামনের কাতারে আছে। ২০১১-১২ অর্থবছরে জিডিপির প্রবৃদ্ধির হিসাবে দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে দ্বিতীয়।”