গোলাপ জলের উপকারিতা

rosewater2রূপচর্চায় সেই আদিকাল থেকেই ব্যবহৃত হয়ে আসছে গোলাপজল। কারণ গোলাপ ফুলের নির্যাসে লুকিয়ে আছে এমন কিছু উপকারী উপাদান যা ব্যবহারে ত্বক হয়ে উঠে আরও উজ্জ্বল। গোলাপজল একদিকে যেমন ত্বককে প্রাকৃতিক ভাবে পরিষ্কার করে তেমনি এর উজ্জ্বলতাও বাড়িয়ে তোলে দ্বিগুণ। আবার এর সুবাস খারাপ মেজাজকে নিমিশেই ফুরফুরে করে তুলতে কম ভূমিকা রাখে না।

তাই অর্থসূচকের পক্ষ থেকে এবারের আয়োজন গোলাপ জলের উপকারিতা:

১. গোলাপের জল ত্বকের রোদে পুড়ে যাওয়ার হাত থেকে বাঁচায়। এমনকি এর ভেতর ব্যথানাশক উপাদান থাকায় এটি ত্বকের জ্বালাপোড়া কমাতেও সাহায্য করে।

২. এটা এক ধরনের বড় পরিষ্কারক। একই সাথে মুখের ছিদ্রে জমে থাকা ময়লা অপসারণের এক মহৌষুধও এটি।

৩. এটি অ্যাস্ট্রিজেন্ট সমৃদ্ধ তথা এতে রয়েছে ধারকের বৈশিষ্ট্য। তাই ফেসিয়ালের সময় এটি ব্যবহার করলে ব্রণ কমে আসার পাশাপাশি ওঠাও বন্ধ হয়ে যায়। এছাড়া গোলাপ জলের ব্যবহারে মুখের লালাভাব অনেক কমে আসে। এমনকি ফেসিয়ালের পর কিংবা ত্বকের ফুসকুড়ি দূর করতেও এটি ব্যবহার করা হয়।

৪. গোলাপ জলের সুবাস মেজাজকে অনেক ভালো রাখে। এটা শুধু আপনাকে দুশ্চিন্তা মুক্ত থাকতেই সাহায্য করবে না, বরং মনকে করবে আরও চাঙ্গা। ফলে সবসময় আপনাকে অনেক উৎফুল্ল দেখাবে। একই সাথে এটা আপনাকে ভালো ঘুমাতে সাহায্য করবে এবং সকালবেলা আপনাকে সতেজ অনুভূতি এনে দিবে। এক কথায়, বিষণ্নতা দূর করে শিথিলতাও এনে দিতে এর কোনো বিকল্প নেই।

৫. গোলাপ জল রাতে ব্যবহার করাই ভালো। কারণ দিনের বেলা যে জীবাণুগুলো মুখের মধ্যে বাসা বাঁধে এগুলোকে ধ্বংস করতে গোলাপজলের কোনো বিকল্প নেই। এমনকি এর ব্যবহারে মুখের বিষাক্ত উপাদানও দূর হয়। তাই ত্বকের যত্নে সবসময় গোলাপজল ব্যবহার করাই বেশি ভালো।