ফরাসি মহিলারা ‘টপলেস’ পরিত্যাগ করছেন

ফরাসি মহিলারা ‘টপলেস’ পরিত্যাগ করছেন

ফ্রান্স কেন, গোটা ইউরোপ জুড়ে অনেক দেশে এবারকার গ্রীষ্মটাকে ঠিক গ্রীষ্ম বলা চলে না৷ সেই সঙ্গে আরেকটা চমকে ওঠার মতো খবর: হালফ্যাশানের ফরাসি মহিলারা নাকি অনাবৃত বক্ষসূর্যস্নান করাটাকে ‘অসভ্য’ বলে মনে করেন৷

 হালফ্যাশানের ফরাসি মহিলারা নাকি অনাবৃত বক্ষে সূর্যস্নান করাটাকে ‘অসভ্য’ বলে মনে করেন

অথচ এই ফ্রান্সে কিছুদিন আগেও সমুদ্রসৈকতে মহিলাদের ‘ল্য টপলেস’ ছাড়া কল্পনাই করা যেত না৷ কিন্তু নারীবাদের পথিকৃৎ ‘এল’ ম্যাগাজিনের একটি সাম্প্রতিক জরিপে দেখা গেছে যে, ৩৫ বছরের কম বয়সের ফরাসি মহিলাদের মাত্র দুই শতাংশ আজও জনসমক্ষে বক্ষদেশ উন্মুক্ত করতে রাজি৷ অর্থাৎ ফ্রেঞ্চ রিভিয়েরায় ব্রিজিট বার্ডো-র কায়দায় অর্ধনগ্নতার যুগ বোধহয় সত্যই শেষ হয়েছে কিংবা শেষ হতে চলেছে৷

ফরাসি মহিলাদের নাকি সংকোচ বেড়েছে৷ নগ্নতাকে আজকাল নাকি ‘‘ভালগার”, অর্থাৎ অশিষ্ট কিংবা ইতর বলে বিবেচনা করছেন ফরাসি মহিলারা৷ সেখান থেকে যদি ফেরা যায় গত শতাব্দীর ষাটের দশকে, তাহলে শোনা – এবং দেখা যাবে আরেক কাহিনি ও দৃশ্য: নারীবাদকে ‘সেক্সি’ করার লক্ষ্যে ‘কোট দাজুর’, বা নীল সৈকতে টপলেস হয়েছিলেন অভিনেত্রী ব্রিজিট বার্ডো৷