যুক্তরাষ্ট্র যাওয়ার পথে ধর্ষিত হয় ৮০ ভাগ নারী

যুক্তরাষ্ট্র যাওয়ার পথে ধর্ষিত হয় ৮০ ভাগ নারী

rape {focus_keyword} যুক্তরাষ্ট্র যাওয়ার পথে ধর্ষিত হয় ৮০ ভাগ নারী rapeঢাকা: মধ্য আমেরিকার দেশগুলো থেকে প্রত্যেক বছর উল্লেখযোগ্য সংখ্যক মানুষ উন্নত জীবনের আশায় পাড়ি জমায় স্বপ্নের দেশ যুক্তরাষ্ট্রে। আর যাওয়ার পথেই ঘটে যায় তাদের জীবনের সবচেয়ে বড় দুঃস্বপ্নটি।

অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের প্রতিবেদন অনুযায়ী, মধ্য আমেরিকার দেশগুলো থেকে মেক্সিকো হয়ে যুক্তরাষ্ট্র যাওয়ার পথে ৮০ শতাংশ নারী ও মেয়ে শিশুই ধর্ষণের শিকার হয়।

পিউ রিসার্চ স্টাডির দেয়া তথ্য অনুযায়ী ধারণা করা হচ্ছে শুধু এ বছরই প্রায় ৭০ হাজার কিশোর-কিশোরী অবৈধভাবে যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়ার চেষ্টা করবে। এদের অধিকাংশই আসবে মধ্য আমেরিকার দেশ এল সালভাদর, গুয়েতেমালাহন্ডুরাস থেকে। যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ পশ্চিম সীমান্তে ধরা পড়া এরকম কিশোর-কিশোরীদের মধ্যে বালকের থেকে বালিকার সংখ্যা অনেক বেশি।

শুধু মে মাসেই অনুপ্রবেশের সময় ধরা পড়া কিশোরীর সংখ্যা আগের থেকে ৭৭ শতাংশ বেশি। মূলত যৌন হয়রানির ভয়েই এসব অল্প বয়সী কিশোরী ঘর ছেড়ে যুক্তরাষ্ট্রের পথে পা বাড়ায়। কিন্তু দীর্ঘ পথ পাড়ি দেয়ার সময় তাদের সেই দুঃস্বপ্ন হানা দেয়।

গবেষণা সংস্থা ফিউশনের মতে, যদি সঙ্গীবিহনী অবস্থায় তারা পথে না বের হতো তাহলে তাদের এই ভাগ্য বরণ করতে হতো না। তবে কখনো কখনো ঘুষের টাকা যোগাড় করার জন্যেও তাদেরকে শরীর বিক্রি করতে হয়। অবস্থাটা এতটাই প্রকট হয়ে গেছে যে ধর্ষিত হওয়ার আগেই অনেক নারী জন্মনিয়ন্ত্রণ সামগ্রী ব্যবহার করা শুরু করে।

এক্ষেত্রে আরো একটি ভয়ঙ্কর বিষয় হলো, নিপীড়তদের সংখ্যা সব সময় বাস্তবতা তুলে ধরে না। কেননা দেশে ফেরত পাঠানো হবে, এমন ভয়ে অনেকেই যৌন নিগ্রহের বিষয়টি নিয়ে মুখ খোলে না। বিষয়টির ওপর প্রতিবেদন তৈরি করার সময় মেক্সিকো হয়ে যুক্তরাষ্ট্র প্রবেশে একটি পথে মাত্র ছয় জনকে এই বিষয়ে মুখ খুলতে দেখা গেছে। তাছাড়া ভুক্তভোগীদের শঙ্কার কারণও রয়েছে। কেননা এসব ক্ষেত্রে অধিকাংশকে তাদের দেশে ফেরত পাঠানোর ব্যবস্থা করা হয়।

বাংলামেইল২৪ডটকম/