অস্ত্রের মুখে ধর্ষিত পুরুষ: মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে পুরুষ ধর্ষণের সংখ্যা বাড়ছে

অস্ত্রের মুখে ধর্ষিত পুরুষ

 ইন্ডিয়া টুডে শিকাগো সিবিএস নিউজের বরাত দিয়ে বলছে, শিকাগোর উত্তরাঞ্চলে রস এবং তার বান্ধবী গাড়ি চালাচ্ছিলেন। এসময় তারা রাস্তা দিয়ে একজন পুরুষ পথচারীকে হেঁটে যেতে দেখেন। গাড়ি থামিয়ে রস তাকে গাড়িতে ওঠার প্রস্তাব দেন।

man raped by women

৩৩ বছর বয়সী ওই ব্যক্তি রসের প্রস্তাবে রাজি হয়ে যান। এরপরই ঘটে আসল ঘটনা। রস পিস্তল বের করেন এবং তাকে জোর করে পিছনের সিটে নিয়ে যান। এবং তার বান্ধবীর সাথে সেক্স করতে বলেন।

লোকটি বের হওয়ার চেষ্টা করলে তারা তাকে জাপটে ধরেন। এরপর রস তাকে জামা-কাপড় খোলার নির্দেশ দেন। এসময় রোজের বান্ধবী তাকে যৌন হেনস্থা শুরু করেন।

তারা ওই ব্যক্তির ২০০ ডলার এবং ক্রেডিট কার্ডও ছিনিয়ে নেন। উদ্ধার পেতে ওই ব্যক্তি একটি ট্যাক্সি-ক্যাব দেখে নগ্ন হয়ে দৌঁড়ে পালান।

টাক্সি ক্যাবের চালক মুঠোফোনে রসের গাড়ির ‘লাইসেন্স প্লেট’র ছবি তুলে রাখেন। শিকাগো পুলিশ পরে রসকে গ্রেপ্তার করে।

এর আগেও রসকে পতিতাবৃত্তির অভিযোগে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। বর্তমানে তিনি একটি পাবেতে খাবার পরিবেশনের কাজ করেন।

তার বিরুদ্ধে ধর্ষণ , সশস্ত্র ডাকাতির অভিযোগ আনা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন সেন্টারের এক জরিপে উঠে এসেছে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে পুরুষ ধর্ষণের সংখ্যা বাড়ছে।

সম্প্রতি এক জরিপে এমন তথ্যই উঠে এসেছে। যৌন অপরাধের মাত্রা জানতেই এ জরিপ চালানো হয়, সে জরিপেই দেখা গেছে, পুরুষ ধর্ষণের সংখ্যা আগের চেয়ে অনেকটাই বেড়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন সেন্টারের এক প্রতিবেদনে এসব তথ্য জানা গেছে। ২০১১ সাল থেকে যৌন অপরাধ সংক্রান্ত ওই জরিপ পরিচালনা করা হয়। এ জরিপে টেলিফোনে ১২ হাজার ৭২৭ জন নারী-পুরুষের সাক্ষাৎকার নেয়া হয়। তাদের সবার বয় ১৮ থেকে ৫০।

জরিপ থেকে উঠে এসেছে, যুক্তরাষ্ট্রে প্রতি ৫ জন নারীর একজন জীবনের কোনো না কোনো সময় ধর্ষণের শিকার হন। অর্থাৎ শতকরা হিসাবে সেখানে প্রায় ২০ শতাংশ নারী ধর্ষণের শিকার হন। বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রে ২ কোটি ৩০ লাখ নারী বাস করেন। তাদের মধ্যে প্রায় ১৯ লাখ নারীই ধর্ষণের শিকার হয়েছেন। অন্যদিকে পুরুষরাও ধর্ষণের শিকার হন ১.৭ শতাংশ। এ সংখ্যা আগের চেয়ে অনেক বেশি। তবে ওই প্রতিবেদনে পুরুষ ধর্ষণ বেড়ে যাওয়ার বিষিয়ে তেমন কোনো ব্যাখ্যা দেয়া হয়নি।

/অর্থসূচক ডেস্ক