হ্যাপী মেমোরিয়াল ডে ২০১৫

মেমোরিয়াল ডে | বেদনায় ও গৌরবে ভাস্বর এই স্মরণ দিবস:
ফারজানা আহমেদ

image

আগামীকাল সোমবার ২৫মে সরকারী ছুটির দিন। আমেরিকান মেমোরিয়াল ডে। সিভিল ওয়ার আমেরিকার রক্তাক্ত অধ্যায়। প্রতি বছর মে মাসের শেষ সোমবার মেমোরিয়াল ডে ছুটির দিন পালন  করা হয়। ইউ এস মিলিটারিতে প্রথম সিভিল ওয়ারে যে সমস্ত নারী পুরুষ প্রাণ দিয়েছিলেন তাদের সম্মানে এই দিনটি পালন করা হয়। ওভার ৬শত হাজারেরও বেশী লোক এ সময় প্রাণ বিসর্জন দেন। প্রায় সমস্ত কমিউনিটি ও স্টেটের কেউ না কেউ  তাদের প্রিয় মানুষটিকে হারায় এই দিনে। নিউ ইয়র্কের ওয়াটারলু টাউনে প্রথম অফিসিয়ালি ফ্ল্যাগ আর ফুল দিয়ে এই দিনটি উদ্বোধন করা হয়। ১৮৬৬ সকলের মে ৬ তাদের দোকান পাট ও ব্যবসা বন্ধ করে তাদের কবরে  ফুল ফ্ল্যাগ দিয়ে তাদের সম্মানের জন্য দিনটি  সেক্রিফাইস করে । তখন জন এ লোগান ছিলেন ইউনাইটেড ভেটারান্স লিডার। তিনিই প্রথম ন্যাশনাল হলিডে হিসাবে দিনটি  ডিক্লেয়ার করেন, এবং তা এপ্রুভ করা হয় । মে ৩০  প্রথম ডেকোরেশন ডে শুরু হয়। ৫০০ অরফান ও আরো জনসাধারণ মিলে তাতে  যোগ দেন। ২০ হাজার কবরে তাদের ফুল, ফ্ল্যাগ ও প্রার্থনা দিয়ে তাদের সম্মান জানানো হয়।  ১৯৭১ সাল থেকে আমেরিকাতে এই দিন সরকারী ফেডারেল হলিডে হিসেবে স্বীকৃতি পায়।

image

       তখন থেকেই তাদের কবরে ডেকোরেশন করা, ফ্ল্যাগ, ফুল দেয়া এবং স্পেশাল দোয়া করার  একটি বিধান চলতে থাকে।
এই দিনে সিটি, টাউন সব জায়গাতেই মেমোরিয়াল ডে প্যারেড অনুষ্ঠিত হয়। বিশেষ ও বড় প্যারেডগুলো হয় ওয়াশিংটন ডি সি, শিকাগো, এবং নিউ ইয়র্কে ।
প্রচুর পরিবার এই দিনে পার্টি, পিকনিক, বারবিকিউ করে থাকে। কিন্তু এটা মেমোরিয়াল ডে’র সাথে কোন ইতিহাস ভিত্তিক যোগাযোগ নেই। তিন দিন উইকেন্ড আর আন অফিসিয়ালি সামার ধরে এই দিনে মানুষ আনন্দে মেতে উঠে।
হ্যাপী মেমোরিয়াল ডে।

প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা বলেছেন :
“আজ কেবল আমরা যারা উর্দি পরেন তাদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাচ্ছি না বরঞ্চ শ্রদ্ধা জানাচ্ছি সেই সব নারী পুরুষের প্রতিও যারা এ দেশের জন্যে আত্মোৎসর্গ করেছেন, যারা এ দেশের নাগরিকদের প্রতিরক্ষায় নিজেদের প্রাণ বিসর্জন দিয়েছেন”।

তিনি নিহত প্রাক্তন সৈনিকদের প্রতি কেবল কথায় নয়, কাজেও শ্রদ্ধা জানাতে বলেন।

আর্জেন্টিনার প্রয়াত লেখক হোসে নারোস্কি এক সময়ে বলেছিলেন, “ যুদ্ধে অক্ষত সৈন্য বলে কোন কথা নেই। সুতরাং যুদ্ধে যে সব সৈন্য আত্মাহুতি দিয়েছেন তাঁদের এবং যাদের জখম কখনো শুকায় না তাদের সবাইকে স্মরণ করে, আমেরিকানরা তাদের অবদানকে স্বীকৃতি দেয় এবং তাদের প্রতি সম্মান প্রদর্শন করে।” (ভোয়া বাংলা)

image

farzana.ahmed48@yahoo.com