ভাইকে বোনের ধর্ষক সাজানোর ঘটনায় জড়িতদের গ্রেপ্তারের নির্দেশ:

ভাইকে বোনের ধর্ষক সাজানোর ঘটনায় জড়িতদের গ্রেপ্তারের নির্দেশ:

image

চট্রগ্রামের রাঙ্গুনিয়ার কিশোরী ধর্ষণের ঘটনায় একটি ইংরেজি দৈনিক পত্রিকায় প্রকাশিত প্রতিবেদনকে এজাহার হিসেবে গ্রহণ ও ধর্ষক শাহ আলমসহ জড়িতদেরকে গ্রেপ্তার করতে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

এ বিষয়ে রাঙ্গুনিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে (ওসি) আগামী ১৫ জুন একটি প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে। এবং জড়িতদের গ্রেপ্তার করতে ওসিকে নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

সোমবার (২৫ মে) বিচারপতি কাজী রেজা-উল হক ও বিচারপতি আবু তাহের মো. সাইফুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চে এ আদেশ দেন। একইসঙ্গে রাঙ্গুনিয়া থানায় মামলা না নেয়া কেন বে-আইনী ঘোষণা করা হবে না, ওই ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে কেন আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে না তা জনতে চেয়ে রুল জারি করেছেন আদালত।

আগামী চার সপ্তাহের মধ্যে সরাষ্ট্র সচিব, পুলিশের মহাপরিদর্শক(আইজিপি), চট্টগ্রামের পুলিশ সুপার, রাঙ্গুনিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ওই মামলার আইওসহ দশজনকে এ রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

আজ আদালতে রিট আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার জ্যোতির্ময় বড়ুয়া। অপরদিকে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল তাপস কুমার বিশ্বাস। রিট আবেদনে অনলাইন নিউজ পোর্টাল বাংলামেইল২৪.কম ও ডেইলি ইন্ডিপেন্ডেন্ট পত্রিকার প্রতিবেদন আদালতে জমা দেয়া হয়।

গতকাল রোববার দুপুরে হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় এ রিট আবেদনটি দায়ের করেন সুপ্রিমকোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার জ্যোতির্ময় বড়ুয়া। এদিকে এঘটনায় অভিযুক্ত ৬২ বছর বয়সী সমজাপতি শাহ আলমের বিরুদ্ধে একটি মামলা করতে যাচ্ছেন ভিকটিমের মা নুর নাহার বেগম। আজ সোমবার চট্টগ্রামের একটি আদালতে এ বিষয়ে একটি মামলা দায়েরের যাবতীয় প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছেন তিনি। পাশাপাশি জঘন্য এ কাজের মূল হোতাসহ জড়িত পুলিশ সদস্যদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিতে সরকাররে প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন নুর নাহার বেগম।

উল্লেখ্য, চট্টগ্রামের রাঙ্গুনীয়া উপজেলার শিলক ইউনিয়নে ১৩ বছর বয়সী দরিদ্র পিতার এক শিশুর ধর্ষণকারীকে বাঁচাতে ধর্ষিতার ১৫ বছর বয়সী আপন ভাইকেই ধর্ষক সাজিয়ে জেলে পাঠানোর অভিযোগ উঠেছে। একাজে রাঙ্গুনীয়া থানা পুলিশের তিন কর্মকর্তা ও সরকার সমর্থিত প্রভাবশালী একজন জনপ্রতিনিধির প্রত্যক্ষ মদদ দেয়া ও ভিকটিমের পরিবারসহ প্রশাসনকে বিপুল অংকের টাকা ঘুষ দেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

সুপ্রিমকোর্ট প্রতিনিধি/ল’ইয়ার্সক্লাববাংলাদেশ.কম