নতুন নোট বিতরণে বায়োমেট্রিক মেশিন ব্যবহার

নতুন নোট বিতরণে বায়োমেট্রিক মেশিন ব্যবহার
নতুন নোট বিতরণে বায়োমেট্রিক মেশিন ব্যবহার
প্রতিবছর ঈদুল ফিতর ও ঈদুল আজহা উপলক্ষে জনসাধারণের মাঝে নতুন নোটের বিপুল চাহিদা থাকে। এজন্য বাংলাদেশ ব্যাংকসহ দেশের বিভিন্ন বাণিজ্যিক ব্যাংকের মাধ্যমে জনপ্রতি নির্ধারিত পরিমাণের নতুন নোট জনসাধারণের মাঝে বিতরণ করা হয়। রবিবার গভর্নর ড. আতিউর রহমান এবং ডেপুটি গভর্নর নাজনীন সুলতানা মতিঝিল অফিসের ক্যাশ বিভাগে ডিজিটাল পদ্ধতিতে নতুন নোট বিতরণ প্রক্রিয়া সরেজমিনে পরিদর্শন করেন এবং নোট গ্রহীতাদের সাথে আলাপ করেন। নোট গ্রহীতারা এ বিষয়ে তাদের সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন।
প্রসঙ্গত, নতুন নোট বিনিময়কালে দেখা যায় একই ব্যক্তি বারবার লাইনে দাড়িয়ে তাঁর জন্য নির্ধারিত নতুন নোটের অধিক পরিমাণ নোট গ্রহণ করে থাকে। এর ফলে অনেকেই নতুন নোট প্রাপ্তি থেকে বঞ্চিত হয়। নতুন নোটের সুষম বন্টন নিশ্চিতকল্পে এবং নতুন নোট প্রত্যাশী প্রত্যেকে যাতে নির্বিঘ্নে এবং সুশৃঙ্খলভাবে নোট গ্রহণ করতে পারে সে উদ্দেশে আসন্ন ঈদ-উল-আজহা, ২০১৫ উপলক্ষে বাংলাদেশ ব্যাংক মতিঝিল অফিসে নোট গ্রহীতাদের সনাক্তকরণের জন্য বায়োমেট্রিক মেশিন স্থাপন করা হয়েছে।
এ মেশিনের মাধ্যমে নোট গ্রহীতার আঙ্গুলের ছাপ এবং ছবি গ্রহণ করা হয়। কেউ একাধিকবার নোট গ্রহণ করতে এলে মেশিনটি সয়ংক্রিয়ভাবে ইতিপূর্বে গৃহীত তাঁর আঙ্গুলের ছাপের মাধ্যমে তাকে চিহ্নিত করে থাকে এবং তিনি আর দ্বিতীয়বার নতুন নোট গ্রহণ করতে পারেন না। এর ফলে মতিঝিল অফিসে নতুন নোট বিনিময়ে সুশৃঙ্খল পরিবেশ বিরাজ করছে।
খবর ফোকাস বাংলার।