সৃজনশীলদের মাঝে যে কারণে চুরির প্রবণতা থাকে

সৃজনশীলদের মাঝে যে কারণে চুরির প্রবণতা থাকে

বিখ্যাত তারকা কিংবা অত্যন্ত সৃজনশীল ব্যক্তিদের মাঝে চুরির প্রবণতা দেখে অনেকেই অবাক হন। কেন এমনটি হয় তা নিয়ে দ্বিধায় ছিলেন গবেষকরা। তবে সম্প্রতি এক গবেষণায় দেখা গেছে, সৃজনশীল ব্যক্তিদের ক্ষেত্রে এ ধরনের প্রবণতা থাকার পেছনে রয়েছে মানসিক অবস্থা।

কেউ যদি মনে করে যে তার সৃজনশীলতা অন্যের তুলনায় বেশি এবং এ কারণে অন্যদের থেকে স্বতন্ত্র, তাহলে সাবধান হতে বলেছেন গবেষকরা। তাদের মত, এমন ধরনের ব্যক্তিদের মানসিকতায় একটি অনাকাঙ্ক্ষিত ‘পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া’ থাকতে পারে। আর এ পার্শ্ব প্রতিক্রিয়ার প্রকাশ হতে পারে মিথ্যাবাদিতা কিংবা অসৎ হওয়ার মাধ্যমে।

সৃজনশীলতা কখন চুরি কিংবা অসৎ হওয়ার মতো পরিস্থিতি তৈরি করে? এক্ষেত্রে কয়েকটি বিশেষ চিন্তা থাকলে এটি হতে পারে বলে মনে করছেন গবেষকরা। এসব চিন্তার মধ্যে রয়েছে, আপনি একজন সৃজনশীল ব্যক্তি। আপনার এ গুণ বিরল এবং মূল্যবান। এ ধরনের চিন্তা থাকলে আপনার মধ্যে মিথ্যাবাদী ও অসৎ হওয়ার প্রবণতা দেখা দিতে পারে। তবে যেসব সৃজনশীল ব্যক্তি অন্যদের তুলনায় নিজের এ গুণকে মূল্যবান কিংবা বিরল বলে মনে করবেন না, তাদের এ প্রবণতা নাও দেখা যেতে পারে।

যুক্তরাষ্ট্রের সাইরাকিউস ইউনিভার্সিটির অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসর ও এ বিষয়ে গবেষক লিন ভিনসেন্ট বলেন, ‘এটি মূলত বিরল হওয়ার অনুভূতি, যা নিজেকে সঠিক বলে ধারণা করায়। মানুষ তার নিজের সৃজনশীল প্রচেষ্টাকে মূল্যবান ও বিশেষ দৃষ্টিতে দেখে। এতে তিনি নিজের কাজের জন্য অতিরিক্ত কিছু আশা করে।’ তিনি আরো বলেন, ‘এ বিশেষ দৃষ্টি পরবর্তীতে চুরির মাধ্যমে নিজের প্রাপ্তি বুঝে নেওয়ার প্রবণতা তৈরি করে।’

এক্ষেত্রে সৃজনশীলতা ও অসৎ হওয়ার প্রবণতার মাঝে কাজ করে নিজেকে বিশেষ বা বিরল মনে করার অনুভূতি। তবে এ অনুভূতি না থাকলে নিজেকে যদি সাধারণ বলে মনে হয় তাহলে অসৎ হওয়ার এ প্রবণতা চলে যায়। গবেষণার ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে একাডেমি অব ম্যানেজমেন্ট জার্নালে সম্প্রতি প্রকাশিত হয়েছে। সূত্র : আইএএনএস

বিডি-প্রতিদিন/৩ অক্টোবর ২০১৫/শরীফ