রুশ অভিযানে আইএস’র কেন্দ্রীয় দপ্তর ও ৫৩টি প্রশিক্ষণকেন্দ্র ধ্বংস

রুশ অভিযানে আইএস’র কেন্দ্রীয় দপ্তর ও ৫৩টি প্রশিক্ষণকেন্দ্র ধ্বংস

রুশ অভিযানে আইএস'র কেন্দ্রীয় দপ্তর ও ৫৩টি প্রশিক্ষণকেন্দ্র ধ্বংসরুশ বিমান অভিযানে জঙ্গি সংগঠন আইএস’র কেন্দ্রীয় দপ্তরসহ ধ্বংস হয়েছে তাদের বহু সামরিক স্থাপনা। সেইসাথে চলমান ওই অভিযানের পর সিরিয় বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে যুদ্ধে উল্লেখযোগ্য সাফল্য পেয়েছে লেবাননের আসাদপন্থী সশস্ত্র সংগঠন হিজবুল্লাহ। দেশটির ইদলিব, হামা এবং লাটাকিয়া প্রদেশে বেশ কিছু এলাকা পুনর্দখল করেছে সিরিয় সরকারি বাহিনী।

গত দুদিন সিরিয়ায় আইএসের ৬৩টি লক্ষ্যবস্তুতে ৬৪ বার বিমান ও মিসাইল হামলা চালিয়েছে রাশিয়া।

রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, হামলায় আইএসের কেন্দ্রীয় দপ্তর, ৫৩টি প্রশিক্ষণকেন্দ্র, যোগাযোগ ব্যবস্থা, অস্ত্রভাণ্ডার ধ্বংস হয়েছে। রাশিয়ার দাবি, রুশ হামলা সিরিয় সরকারের সাথে সমন্বয়ের মাধ্যমেই করা হচ্ছে।

রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিন বলেছেন, ‘সিরিয়ায় সব হামলা পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী করা হয়েছে।’

সিরিয়ার সরকারি টেলিভিশন ও যুক্তরাজ্যভিত্তিক মানবাধিকার সংগঠন সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস জানিয়েছে, রুশ বিমান হামলার সমর্থন নিয়ে প্রেসিডেন্ট আসাদের বাহিনী হামায় আল-কায়দা-সমর্থিত আল নুসরা ফ্রন্টসহ বিদ্রোহী গোষ্ঠীগুলোর নিয়ন্ত্রণ থেকে বেশকিছু এলাকা দখল করে নিয়েছে। হামার উত্তর-পশ্চিমে বিদ্রোহীদের সঙ্গে প্রচন্ড লড়াই চলছে সরকারি বাহিনীর। একটি পাহাড় নিয়ন্ত্রণে নিয়েছে আসাদ বাহিনী।

রাজধানী দামেস্কসহ, আলেপ্পো ও অন্যান্য শহরগুলোর সাথে যুক্ত প্রধান যুক্তক্ষেত্রের পাশ্ববর্তী মহাসড়ক এখন বন্ধ রয়েছে। আসাদের বাহিনী ইদলিবও পুনর্দখলে নিতে চাইছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। তবে ওই এলাকায় আল-নুসরা ফ্রন্টের এক জ্যেষ্ঠ কমান্ডার সব বিদ্রোহী গ্রুপকে সম্মিলিতভাবে সরকারি বাহিনীর বিরুদ্ধে পাল্টা হামলা চালানোর আহ্বান জানিয়েছেন।

অপরদিকে সিরিয়া পরিস্থিতি নিয়ে রাশিয়াকে সহযোগিতা করার কথা জানিয়েছে সৌদি আরব। সন্ত্রাসী খিলাফত প্রতিষ্ঠা রোধে একসাথে কাজ করতে ঐক্যমতে পৌঁছেছে তারা।

চ্যানেল আই অনলাইন/