ছয় বছরে স্টুডেন্ট অ্যাকাউন্টে জমা সাড়ে ১১ হাজার কোটি টাকা

স্কুল ব্যাংকিং অ্যাকাউন্টে ১১ হাজার ৫০০ কোটি টাকা:

গত ছয় বছরে স্কুল ব্যাংকিং কার্যক্রমের আওতায় মোট ১৩ লাখ ৭৪ হাজার ৪৪৩টি স্টুডেন্ট অ্যাকাউন্ট খোলা হয়েছে। আর এসব অ্যাকাউন্টে জমা পড়েছে প্রায় ১১ হাজার ৫০০ কোটি টাকা। গতকাল কুষ্টিয়ার পৌর অডিটরিয়ামে আয়োজিত স্কুল ব্যাংকিং কনফারেন্সে বক্তারা একথা জানান।

স্কুলপড়ুয়া শিক্ষার্থীদের সঞ্চয় ও ব্যাংকিং ধারণায় উত্সাহিত করতেই গতকাল এ কনফারেন্সের আয়োজন করা হয়। এর আয়োজক হিসেবে ছিল এবি ব্যাংক। অনুষ্ঠানটিতে বাংলাদেশ ব্যাংকসহ জেলায় কার্যরত সব ব্যাংকের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও ৩০টি স্কুলের শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা অংশগ্রহণ করেন।

সকাল ১০টায় বেলুন উড়িয়ে কর্মসূচিটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসক জহির রায়হান। এবি ব্যাংকের ডিজিএম সাজ্জাদ হুসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ব্যাংক ঢাকা শাখার ডিজিএম রেজাউল করিম সরকার, রাজশাহী শাখার ডিজিএম শেখ হালিম উদ্দিন শাহ্, জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা জায়েদুর রহমান প্রমুখ। এ সময় বক্তারা শিক্ষার্থীদের ক্ষুদ্র সঞ্চয় ও ব্যাংকিং ব্যবস্থার সঙ্গে সম্পৃক্ত করার গুরুত্ব তুলে ধরেন এবং তাদের উত্সাহ দেন। বক্তারা এ ব্যাপারে সবাইকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।

বাংলাদেশ ব্যাংকের উপমহাব্যবস্থাপক রেজাউল করিম সরকার বলেন, সরকারি ব্যাংকিং কর্মসূচির আওতায় ২০১০ সালে ‘স্কুল ব্যাংকিং’ নামে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানভিত্তিক আর্থিক সেবা কার্যক্রম চালু করা হয়। শুরু থেকে এখন পর্যন্ত এ কর্মসূচির আওতায় ১৩ লাখ ৭৪ হাজার ৪৪৩টি স্টুডেন্ট অ্যাকাউন্টে প্রায় সাড়ে ১১ হাজার কোটি টাকা জমা পড়েছে। পরিমাণটি তফসিলভুক্ত দুটি ব্যাংকের মোট মূলধনের চেয়েও বেশি। এটি আমাদের জন্য ইতিবাচক অর্জন। আপত্কালীন বা পরবর্তী শিক্ষাব্যয় জোগান দিতে এ অর্থ শিক্ষার্থীদের জন্য সহায়ক হবে।

অনুষ্ঠানে অংশ নেয়া কুষ্টিয়া পুলিশ লাইন উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী আঞ্জুমান তিথি বলে, আমরা আগে ব্যাংকিং সম্পর্কে তেমন কিছুই জানতাম না। এবি ব্যাংকের এক কর্মকর্তার সহযোগিতায় গত জানুয়ারিতে আমি একটি হিসাব খুলি। হাতখরচের টাকা বাঁচিয়ে সেখানে টাকা জমা দিই। আমার ব্যাংক হিসাবে এখন প্রায় ২ হাজার টাকা জমা হয়েছে। এভাবে সব শিক্ষার্থীরই ক্ষুদ্র সঞ্চয়ের লক্ষ্যে ব্যাংকে যাওয়া দরকার। এতে কিছু টাকাও জমা হবে আবার ব্যাংকিং ধারণাও তৈরি হবে।

সূত্র: বনিকবার্তা