ফেসবুকে কোরআন অবমাননার পর শত শত মুসুল্লির সামনে তওবা

ফেসবুকে কোরআন অবমাননার পর শত শত মুসুল্লির সামনে তওবা:

নারায়ণগঞ্জ সদরের ফতুল্লার কুতুবপুর ইউনিয়নে পবিত্র কোরআন অবমাননা করে ফেসবুকে একটি পোস্ট দেয়ার ঘটনায় গ্রেফতার হয়েছিলেন হাসান উল ইসলাম (২৯)। সাত মাস কারাভোগ শেষে জামিনে বেরিয়ে এসে প্রকাশ্যে তওবা করেছেন তিনি।

শুক্রবার বাদ জুমআ কুতুবপুর ইউনিয়নের দেলপাড়া কবরস্থান মাঠে কুতুবপুর ইসলামিক কালচার সেন্টারের উদ্যোগে প্রকাশ্যে তওবা করে হাসান ফের ইসলাম ধর্মে ফিরে আসেন।

এসময় মুসুল্লিদের উদ্দেশে হাসান বলেন, তিনি সবচেয়ে ঘৃণিত একটি কাজ করেছেন। এজন্য তিনি অনুতপ্ত ও লজ্জিত।

এসময় তার বাবা মজিবুর রহমানও মুসুল্লিদের কাছে ছেলের কৃতকর্মের জন্য ক্ষমা প্রার্থনা করেন। ওই তওবা অনুষ্ঠানে এলাকার শত শত মুসুল্লি উপস্থিত ছিলেন।

হাসানকে তওবা পড়ান জামিয়া আশরাফিয়া মাদরাসার মুহতামিম মুফতি আবদুল বারী। সভাপতিত্ব করেন কুতুবপুর ইসলামিক কালচার সেন্টারের মাওলানা গাজী আবুল খায়ের।

উল্লেখ্য, কোরআন অবমাননা করে ফেসবুকে একটি পোস্ট দেয়ার ঘটনায় হাসানের বিরুদ্ধে ফতুল্লা মডেল থানায় মামলা দায়ের করেছিলেন ভূইগড় আল আরাফা জামে মসজিদের ইমাম সিদ্দিক উল্লাহ।

পরে ১৩ জানুয়ারি সকালে সোনারগাঁওয়ের মেঘনা ঘাট এলাকা থেকে হাসানকে গ্রেফতার করা হয়। পরদিন তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

এছাড়া হাসানের ফাঁসির দাবিতে একাধিকবার বিক্ষোভও করেছিলেন মুসুল্লিরা।