তৈরি পোশাকশিল্প খাতে রফতানি থেকে আয়ের ওপর আয়কর হার সর্বোচ্চ ১২ শতাংশ

পণ্যের রফতানি মূল্যের ওপর থেকে উৎসে কর কাটার হার কমিয়েছে সরকার। চলতি ২০১৮-১৯ অর্থবছর থেকে শূন্য দশমিক ১ শতাংশ থেকে কমিয়ে শূন্য দশমিক ৬০ শতাংশ করা হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার অর্থ মন্ত্রণালয় থেকে এ সংক্রান্ত গেজেট প্রকাশ করা হয়েছে।

তৈরি পোশাক খাতেও ছাড় দিয়ে আলাদা আরেকটি গেজেটে প্রকাশ করা হয়েছে। এই খাতে রফতানি আয়ের ওপর আয়কর হার সর্বোচ্চ ১২ শতাংশ চলতি অর্থবছরেও বহাল রাখা হয়েছে। কোন কারখানার আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত ‘গ্রিন বিল্ডিং সার্টিফিকেট’ থাকলে এ হার ১০ শতাংশ রাখা হয়েছে।

গত অর্থবছরে পাটজাত পণ্য ছাড়া সব পণ্য রফতানির ক্ষেত্রে উৎসে কর কর্তনের হার কমিয়ে শূন্য দশমিক ৭০ শতাংশ করা হয়। এ নিয়ে একটি গেজেটও জারি করে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। সে গেজেটের মেয়াদ গত জুন মাসে শেষ হয়েছে। পরে ব্যবসায়ীদের দাবির মুখে এই উৎসে কর হার শূন্য দশমিক ৬০ করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। সেই হার পরিবর্তন করেই নতুন গেজেট প্রকাশ করল অর্থমন্ত্রণালয়। পাটজাত পণ্য বাদে সব পণ্যের এ হার প্রযোজ্য হবে।

  বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, নতুন করে ফার্মাসিউটিক্যালস পণ্যে ১০ শতাংশ, মোটরসাইকেলে ১০ শতাংশ, কেমিক্যাল পণ্যে (ক্লোরিন, হাইড্রোক্লোরিক অ্যাসিড, কস্টিক সোডা এবং হাইড্রোজেন পারক্সাইড) ১০ শতাংশ, রেজার ও রেজার ব্লেডসে ১০ শতাংশ, সিরামিক পণ্যে ১০ শতাংশ, টুপিতে ১০ শতাংশ, কাঁকড়া ও কুঁচেতে (হিমায়িত ও সফটসেল, পরিবেশ ও বন বিভাগের ছাড়পত্র গ্রহণ সাপেক্ষে) ১০ শতাংশ ও গ্যালভানাইজ সিট/কয়েলে ১০ শতাংশ সহায়তা দেবে সরকার। এছাড়া আগে যে ২৬টি পণ্যে রফতানি সহায়তা দেওয়া হতো, তা বহাল থাকবে।