আমেরিকায় বাঙালির সংখ্যা বেড়েছে ৫৭ শতাংশ

আমেরিকায় বাঙালির সংখ্যা বেড়েছে ৫৭ শতাংশ

বিগত সাত বছরে আমেরিকায় বাংলাভাষী জনগোষ্ঠীর সংখ্যা বেড়েছে প্রায় ৫৭ শতাংশ। ২০১০ সালে আমেরিকায় বাংলাভাষী জনসংখ্যা ছিল তিন লাখ ২৩ হাজার। যেখানে ২০১৭ সালে এ জনসংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে প্রায় সাড়ে তিন লাখ।

যুক্তরাষ্ট্রের সেন্টার ফর ইমিগ্রেশন স্টাডিজের প্রকাশিত এক রিপোর্টে এ তথ্য জানানো হয়।

ইংরেজি ছাড়া অন্যান্য ভাষাগোষ্ঠীর জনসংখ্যার বৃদ্ধির নিরিখে তেলুগুর ঠিক পরেই আছে বাংলা। তাৎপর্যপূর্ণভাবে জনসংখ্যা বৃদ্ধির হিসেবে বাংলা বা তেলুগুবাসী জনগোষ্ঠীর ধারের কাছে নেই মান্দারিন (চীনা) ও স্প্যানিশ।

শুধু বাংলা বা তেলুগু নয়, আমেরিকার বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ শহরে ইংরেজি ছাড়া অন্যান্য ভাষাগোষ্ঠীর জনসংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে তাৎপর্যপূর্ণভাবে।

২০১৭ সালের তথ্যানুযায়ী, আমেরিকায় ইংরেজি ছাড়া অন্য ভাষায় কথা বলেন মোট জনসংখ্যার (৩২.৫ কোটি) প্রায় ২২ শতাংশ। ১৯৮০ সালে এ সংখ্যা ছিল মাত্র ১১ শতাংশ।

মার্কিন জনগণনার রিপোর্ট থেকে পরিষ্কার, সারা দুনিয়ার এক বিপুলসংখ্যক মানুষ স্বাচ্ছন্দ্য ও জীবিকার খোঁজে পাড়ি জমাচ্ছেন উত্তর আমেরিকার এ দেশে।

ভাষার হিসাব বিশ্লেষণ করলে অবশ্য দেখা যাচ্ছে, যে নতুন মানুষেরা আমেরিকায় ঠাঁই নিচ্ছেন, তাদের মধ্যে শীর্ষে ভারতীয়রাই। জনসংখ্যার শতাংশ বৃদ্ধির নিরিখে প্রথম ছয়টি ভাষাগোষ্ঠীর মধ্যেই আছেন ভারতীয়রা।

তালিকার প্রথম ছয়টি ভাষাগোষ্ঠী হল- তেলুগু, বাংলা, তামিল, আরবি, হিন্দি ও উর্দু। এর মধ্যে আরবি ছাড়া সবই ভারতীয় ভাষা। তবে বাঙালিদের মধ্যে আছেন বাংলাদেশের বাঙালিরাও। একই রকমভাবে উর্দুভাষীদের মধ্যে আছেন পাকিস্তানিরাও।

যদিও বাঙালিদের মধ্যে কত শতাংশ বাংলাদেশি এবং উর্দুভাষীদের মধ্যে কত শতাংশ পাকিস্তানি সেই তথ্য পাওয়া যায়নি মার্কিন রিপোর্টে।

শতাংশের হিসাব বাদ দিয়ে মোট জনসংখ্যা বৃদ্ধির নিরিখেও সাত নম্বরে আছে বাংলা। এ তালিকায় চীনা, আরবি, হিন্দি, তেলুগু, তাগালোগ এবং হাইতিয়ানের পরই আছে বাংলা।