একদিনে সর্বোচ্চ ২২ জনের মৃত্যু, রেকর্ড আক্রান্ত ১৭৭৩

একদিনে সর্বোচ্চ ২২ জনের মৃত্যু, রেকর্ড আক্রান্ত ১৭৭৩

দেশে এ নিয়ে করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা ৪০৮ জন এবং আক্রান্তের সংখ্যা ২৮ হাজার ৫১১ জনে দাঁড়াল। এছাড়া বৃহস্পতিবার দ্বিতীয় দিনের মতো ১০ হাজারের বেশি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে।

বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড ২২ জন মারা গেছেন। মৃতদের মধ্যে ১৯ জন পুরুষ ও ৩ জন নারী। এ নিয়ে প্রাণঘাতি এই ভাইরাসে মৃতের সংখ্যা ৪০৮ জনে দাঁড়াল।

এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড ১ হাজার ৭৭৩ জনের শরীরে শনাক্ত হয়েছে ভাইরাসটি। এ নিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ২৮ হাজার ৫১১ জনে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে নিয়মিত অনলাইন ব্রিফিংয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা এ তথ্য জানান।

তিনি আরও জানান, করোনাভাইরাস শনাক্তে গত ২৪ ঘণ্টায় ১০ হাজার ১৭৪টি নমুনা সংগ্রহ এবং ১০ হাজার ২৬২টি পরীক্ষা করা হয়েছে। এ নিয়ে টানা দ্বিতীয় দিনের মতো ১০ হাজারের বেশি নমুনা পরীক্ষা করা হলো। মোট ৪৭টি ল্যাবে এই নমুনাগুলো পরীক্ষা করা হয়।

মৃতদের মধ্যে ১০ জন ঢাকা, ৮ জন চট্টগ্রাম, ৩ জন সিলেট ও ১ জন ময়মনসিংহ বিভাগের বাসিন্দা বলে জানিয়েছেন অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা। তাদের মধ্যে ১৬ জন হাসপাতালে ও ৫ জন নিজ বাসায় মারা গেছেন। আরেকজনকে মৃত অবস্থায় হাসপাতালে আনা হয়েছিল।

মৃত ২২ জনের বয়স:

  • ১১ থেকে ২০ বছর বয়সী: ২ জন।
  • ৩১ থেকে ৪০ বছর বয়সী: ১ জন।
  • ৪১ থেকে ৫০ বছর বয়সী: ২ জন।
  • ৫১ থেকে ৬০ বছর বয়সী: ১০ জন।
  • ৬১ থেকে ৭০ বছর বয়সী: ৩ জন।
  • ৭১ থেকে ৮০ বছর বয়সী: ২ জন।
  • ৮১ থেকে ৯০ বছর বয়সী: ২ জন।

অন্যদিকে, গত ২৪ ঘন্টায় ৩৯৫ জন সুস্থ হয়েছেন। এ নিয়ে মোট ৫ হাজার ৬০২ জন প্রাণঘাতি এই ভাইরাস থেকে সেরে উঠলেন।

দেশে করোনাভাইরাসে সংক্রমিত প্রথম রোগী শনাক্ত হয় ৮ মার্চ। এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রথম মৃত্যুর ঘটনা ঘটে ১৮ মার্চ।

এক নজরে বাংলাদেশের করোনাচিত্র: 

  • মোট আক্রান্ত: ২৮ হাজার ৫১১ জন।
  • মারা গেছেন : ৪০৮ জন।
  • মোট সুস্থ : ৫ হাজার ৬০২ জন।
  • মোট নমুনা পরীক্ষা: ২ লক্ষ ১৪ হাজার ১১৪টি।

করোনাভাইরাস সংক্রান্ত যেকোনো তথ্যের জন্য সরকার ইতোমধ্যেই একটি বিশেষ ওয়েবসাইট (www.corona.gov.bd) চালু করেছে।

এদিকে, ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্যমতে, বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ সময় দুপুর ২টা পর্যন্ত বৈশ্বিক এ মহামারিতে সারা পৃথিবীতে ৫১ লাখ ৯১২ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এদের মধ্যে ২০ লাখ ৩৩ হাজার ৪৮৮ জন সুস্থ হয়ে উঠলেও প্রাণ গেছে ৩ লাখ ২৯ হাজার ৪৯৬ জনের।

সবচেয়ে বেশি প্রাণহানি ঘটেছে যেসব দেশে:

  • যুক্তরাষ্ট্র: ৯৪ হাজার ৯৪১ জন।
  • যুক্তরাজ্য: ৩৫ হাজার ৭০৪ জন।
  • ইতালি: ৩২ হাজার ৩৩০ জন।
  • ফ্রান্স: ২৮ হাজার ১৩২ জন।
  • স্পেন: ২৭ হাজার ৮৮৮ জন।
  • ব্রাজিল: ১৮ হাজার ৮৯৪ জন।
  • বেলজিয়াম: ৯ হাজার ১৫০ জন।
  • জার্মানি: ৮ হাজার ২৭০ জন।
  • ইরান: ৭ হাজার ১৮৩ জন।
  • মেক্সিকো: ৬ হাজার ৯০ জন।