এইচ -১বি সহ একাধিক কাজের ভিসা দেওয়া বন্ধ করল ট্রাম্প, হতাশ পিচাই

এইচ -১বি সহ একাধিক কাজের ভিসা দেওয়া বন্ধ করল ট্রাম্প, হতাশ পিচাই

ওয়াশিংটন: যেভাবে ট্রাম্প প্রশাসন এইচ -১বি সহ একাধিক কাজের ভিসা দেওয়া আপাতত বন্ধ করে দিল তা দেখে হতাশ হয়েছেন গুগল এবং আলফাবেটের সিইও সুন্দর পিচাই। এই বছরের শেষ অবধি এইচ-১বি, এইচ-৪,এল-১ এবং জে-১ ভিসা দেওয়া হবে না বলে সিদ্ধান্ত নিল মার্কিন প্রশাসন। এমনটা ঘটছে তার ইঙ্গিত গত শনিবারেই দিয়েছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প

https://www.kolkata24x7.com/disappointed-says-sundar-pichai-as-trump-pauses-work-visas/

সোমবার এই বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়ার কথা ছিল। সেই মতোই দেখা গেল সোমবার হোয়াইট হাউস সাংবাদিকদের জানাল, প্রেসিডেন্ট সাময়িক ভাবে প্রশাসনিক সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভিসার ক্ষেত্রে রাশ টানার ব্যাপারে। এর ফলে এই বছরের শেষ পর্যন্ত আর কোনও ওয়ার্ক ভিসা দেওয়া হবে না। যার ফলে মার্কিনীরা দেশে ৫ লক্ষ ২৫ হাজার কর্মসংস্থানের সুযোগ পাবে।

তবে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প তার নয়া ভিসা নীতিতে মেধার ভিত্তিতে ভিসা চালুর নির্দেশ দিয়েছেন। এর ফলে সর্বোচ্চ দক্ষতা সম্পন্ন এবং উচ্চ বেতনের কর্মীদের ভিসা পেতে অসুবিধা হবে না এবং মার্কিন কর্মক্ষেত্রে কোনও বিরূপ প্রভাব পডবে না বলে বিবৃতিতে জানানো হয়েছে। কিন্তু ট্রাম্প প্রশাসন যাই আশা করুক না কেন, বিভিন্ন মহলে বিশেষত শিল্পমহলের এই নিয়ে হতাশা ও অসন্তোষ দেখা দিয়েছে।

ভারতীয় বংশোদ্ভূত গুগল কর্তা সুন্দর পিচাই এই বিষয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন। এই প্রসঙ্গে তার বক্তব্য, এমন ঘোষণায় তিনি হতাশ হয়েছেন। তিনি সবসময় অভিবাসীদের পাশে থাকবেন এবং তাদের কাজের সুযোগ তৈরি করে দেওয়ার চেষ্টা করবেন বলে জানিয়েছেন। শুধু সুন্দর পিচাই নন তথ্যপ্রযুক্তি জগতের আরো অনেক বিশিষ্ট ব্যক্তিরা এই ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

যেমন মাইক্রোসফটের প্রেসিডেন্ট ব্র্যাড স্মিথের বক্তব্য,‌ এখন এটা সময় নয় এদেশকে পৃথিবীর মেধা থেকে বিচ্ছিন্ন করা এবং একটা অনিশ্চিত ও দুশ্চিন্তার পরিবেশ সৃষ্টি করার। যেখানে অভিভাসনকারীরা‌ এ দেশের সংস্থা এবং পরিকাঠামোর ক্ষেত্রে একটা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

প্রসঙ্গত কিছুদিন আগে যখন শ্বেতাঙ্গ পুলিশের হাতে কৃষ্ণাঙ্গ আফ্রিকা বংশোদ্ভূত আমেরিকান জর্জ ফ্লয়েডের হত্যার প্রতিবাদে গোটা মার্কিন মুলুকে ‌ প্রতিবাদের আগুন ছড়িয়ে পড়ছে তখন আমেরিকার বড় বড় প্রযুক্তি সংস্থার কর্তাদের সরব হতে দেখা গিয়েছিল।

সেই সময় নিহত ফ্লয়েড এবং প্রতিবাদকারীদের পাশে থেকে সংহতির বার্তা দিয়েছিলেন সুন্দর পিচাই, সত্য নাদেলা, টিম কুকের মতো বাণিজ্যের দুনিয়ার নেতৃবৃন্দরা। এবার আবার‌সেই সুন্দর পিচাই সহ আরও কেউ কেউ মার্কিন ভিসা নীতি নিয়ে সরব হতে দেখা যাচ্ছে।