১১ বছর ধরে মেয়ের ওপর বাবার এ কেমন নির্যাতন

20131128-092355.jpg

28 Nov, 2013 ঢানা ১১ বছর ধরে বাবা পরিচয়ধারী এক নরপশুর পৈশাচিক আচরনের শিকার হয়েছে হতভাগ্য এক কন্যা। মাত্র ১৫ বছর বয়সে বাবা তার মেয়েকে প্রথম ধর্ষণ করে। এর পর থেকে সে নিয়মিতভাবে মেয়ের ইচ্ছার বিরুদ্ধে তার দুর্বলতার সুযোগ নিয়ে যৌনসম্পর্ক চালিয়ে যেতে থাকে।

বর্তমানে মেয়ের বয়স ২৬ বছর। ইতিমধ্যেই এই তরুণীর গর্ভে বাবার ঔরসজাত আট বছরের একটি মেয়েও রয়েছে। ভারতের মুম্বাইয়ে এ ঘটনা ঘটেছে। পিতার এই আচরণে ভেতরে ভেতরে অপরাধ ও পাপবোধ জন্মালেও মেয়েটি পিতার এই আচরণের বিরুদ্ধে সেভাবে প্রতিবাদ করার সাহস পায়নি।

বুধবারে মুম্বাই পুলিশ ৫০ বছরের সেই লম্পট পিতাকে গ্রেপ্তার করেছে।

সুযোগ বুঝে ২৬ বছরের নির্যাতিতা হতভাগ্য এই মেয়েটি পুলিশের কাছে নালিশ করেছে। পুলিশের কাছে পিতা পরিচয়ধারী এই পশুর বিরুদ্ধে অভিযোগ করে বলেছেন, ‘দীর্ঘদিন ধরে বাবা আমাকে ধর্ষণ করে আসছেন।

তবে আমি এর কোনো প্রতিবাদ করেনি। কিন্তু তিনি যখন আমাকে বিয়ে করার প্রস্তাব দেন তথন আমি এটি মেনে নিতে পারিনি। আর তখনই আমি প্রতিবাদমূখর হয়ে উঠি। প্রথম প্রথম তিনি আমাকে বিয়ে না করার কথা বলেছিলেন কিন্তু পরে তিনি সেখানে থেকে সরে এসে গোপনে আমাকে বিয়ে করার বন্দোবস্ত করে।

বিষয়টি এক পর্যায়ে পুলিশের কানে আসে। পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ভ- বাবা তার মেয়েকে যৌন ব্যবসায় নিয়োজিত করার পরিকল্পনা করেছিলেন। এমনকি বিষয়টি জানাযানি হওয়ার ভয়ে মেয়েকে ঘর থেকে বের হতে দিতেন না। বর্তমানে মেয়টির মেডিকেল পরীক্ষা-নিরীক্ষা চলছে।

মাত্র ১৫ বছর বয়সে বাবার বিকৃত মানসিকতার শিকার হতভাগ্য এ নারী বলেন, ‘বাবা প্রথম অবস্থায় মানব চরিত্রের বিকৃত দিক বোঝানোর জন্যে আমার সঙ্গে এমনটি করতেন বলে আমাকে বুঝিয়েছেন। কিন্তু এক পর্যায়ে উনি আমাকে নিয়মিত ধর্ষণ করতে থাকেন। মা এর প্রতিবাদে এগিয়ে আসলে আমার ওপরেও অকথ্য নির্যাতন নেমে আসে। মাকে ঘরে আটকে রেখে মারধোর করা এক রকম ফ্যাশনে পরিণত হয়ে ওঠে। আমার ওপর নির্যাতনের বিষয়টি আমার ভাইও প্রতিবাদ জানায় এবং কিন্তু কাজ হয়নি। আমার ভাইকেও হত্যার হুমকি দিতো বাবা।’

মাত্র ১৮ বছর বয়সে বাবার ঔরসজাত সন্তান গর্ভে ধারণ করেন হতভাগ্য তরুণী। এরপর তাকে একটি সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয় এবং সেখানে সন্তান প্রসব করে এবং সন্তানের বাবার ভুয়া পরিচয় দেয়া হয়।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে বাবা পরিচয়ধারী এই নরপশু মেয়ের ওপর যৌন নির্যাতনের কথা স্বীকার করে বলেছে, ‘আমি মেয়েকে মানুষের বৈরী আচরণ সম্পর্কে জানানোর জন্যেই এমনটি করেছি।’উৎসঃ ঢাকাটাইমস