পশ্চিম তীরে ফিলিস্তিনি বাড়িঘর গুঁড়িয়ে দিয়েছে ইসরায়েল

ঢাকা: অধিকৃত পশ্চিম তীরে ফিলিস্তিনি ঘরবাড়ি গুঁড়িয়ে দিয়ে চলেছে ইসরায়েল। গৃহহীন মানুষগুলোর জীবন হুমকির মুখে পড়বে বলে, জাতিসংঘ উদ্বিগ্নতা প্রকাশ করেছিল। তা উপেক্ষা করে ইসরায়েল এ হামলা চালিয়েছে বলে জানা যায়।
রামাল্লা ও জেরিকোর নিকটবর্তী অঞ্চলে, ক্রিসমাসের বিকেলে, বুলডোজার দিয়ে সেখানকার প্রায় ৭০ জন অধিবাসীর ঘরবাড়ি গুঁড়িয়ে দেয় ইসরায়েল। এদের মধ্যে ৩২ জন শিশু রয়েছে বলে জানা গেছে।
জাতিসংঘের রিলিফ এন্ড ওয়ার্কস এজেন্সি জানিয়েছে, ইসরায়েলের এ ধরনের কর্মকান্ডে স্পষ্ট আইন লঙ্ঘন করা হচ্ছে এবং হাজার হাজার ফিলিস্তিনিকে দারুণ শীতের মাঝে গৃহহীন করে দিয়েছে।
জানা গেছে, জাতিসংঘ সহ অন্যান্য আন্তর্জাতিক মহলের নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও, ইসরায়েল ফিলিস্তিনের অধিকৃত অঞ্চলসমূহে আরও অধিক সংখ্যক অবৈধ বসতি স্থাপন করার ঘোষণা দিয়েছে।
সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, ১৯৬৭ সালের আরব-ইসরায়েল যুদ্ধে ঐ এলাকা ইসরায়েল কর্তৃক দখলকৃত হবার কারণে স্থানটি জেনেভা কনভেশনের আওতাভুক্ত হয়ে গেছে। যে কারণে সেখানে আইনত তারা কোন বসতি স্থাপন করতে পারবে না।
ইসরায়েল অধিকৃত পশ্চিম তীর ও পূর্বাঞ্চল আল-কুদসে ১৯৬৭ সাল থেকে এ যাবত ১২০ টি অবৈধ বসতিতে প্রায় ৫ লাখ ইসরায়েলী বসবাস করে আসছে।