ভালোবাসার পুরুষটির সঙ্গে যা করবেন না

ভালোবাসার পুরুষটির সঙ্গে যা করবেন না

যে কোনো সম্পর্কের ক্ষেত্রেই পারস্পরিক বিশ্বস্ততা ও সমঝোতা থাকা জরুরী। সেই সঙ্গে দরকার একে অপরের প্রতি সম্মানবোধ। আপনি আপনার প্রেমিক বা স্বামীকে ভালোবাসেন। কিন্তু তারপরও মাঝে মাঝে আপনার কোন একটা কর্ম বা আচরণের কারণে দু’জনের মধ্যে মনোমালিন্য তৈরি হতে পারে। তাই সম্পর্কের ক্ষেত্রে হতে হবে আরো যত্নশীল।

সঙ্গীর সঙ্গে চমৎকার সম্পর্ক ধরে রাখতে কয়েকটি ব্যাপারে সতর্ক থাকবেন। এগুলো হলো:

১. আপনার সঙ্গী যদি আপনার চেয়ে শিক্ষাগত যোগ্যতায় বা সামাজিক পদমর্যাদা কিংবা তিনি যদি আপনার চেয়ে কম বেতন পান তাহলে তাকে এসব ব্যাপারে কখনোই খোটা দেবেন না। এতে তিনি ব্যথিত হবেন, তেমনি সম্ভাবনা থাকবে সম্পর্ক ভেঙে যাবারও।

২. সঙ্গীর আয়-রোজগারের ব্যাপারে যতটা সম্ভব কম কথা বলুন। তাকে আয় বাড়ানোর জন্য চাপাচাপি করবেন না। তাছাড়া আপনার সঙ্গী কীভাবে খরচ করেন, কেন খরচ করেন এসব নিয়ে বেশি কথা জিজ্ঞেস করলেও বিরক্ত হবেন। আর বারবার অর্থনৈতিক ব্যাপারে কাউকে উত্যক্ত করা মানে তাঁকে ছোট করার চেষ্টা করা। তাই এ কাজটি করা থেকেও বিরত থাকুন।

৩. আপনার কাছে যেমন আপনার পরিবারের সদস্য, আত্মীয়-স্বজন গুরুত্বপূর্ণ, তেমনি আপনার সঙ্গীর কাছেও তার পরিবার-পরিজন গুরুত্বপূর্ণ। তাই তার আপনজনদের ব্যাপারে কোনো কটু কথা বলবেন না। আর বাইরের কারো সামনে তাকে ছোট করে কিছু বলবেন না।

৪. অন্য কারো সঙ্গে তুলনা দেবেন না। কখনোই বলবেন না যে, তুমি অমুকের মতো হ্যান্ডসাম না বা তমুকের রুচি তোমার চেয়ে ভালো।

৫. প্রেমিক বা স্বামীর বন্ধুদের সঙ্গে বেশি ঘনিষ্ঠতা না রাখাই ভালো। নয়তো দেখা দিতে পারে নানা রকমের সমস্যা। এতে আপনার সঙ্গীর মনে দেখা দিতে পারে অমূলক সন্দেহ কিংবা আপনার সঙ্গীর বন্ধু আপনার প্রতি দুর্বল হয়ে পড়তে পারে ইত্যাদি। এছাড়া নিজের ব্যক্তিগত সমস্যার কথা তার বন্ধুকে শেয়ার করা নিয়েও আপনাদের দু’জনের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝি হতে পারে।
সূত্রঃ বাংলাদেশ প্রতিদিন