তোমার স্মৃতিগুলো আজও আমায় কাঁদায়: শাবনূর – Ekush.Info

নায়ক সালমান শাহর নাম উচ্চারিত হলেই যার নামটি সহজাতভাবে সামনে চলে আসে, তিনি শাবনূর। কারণ, তারা দুজন ঢালিউডের অন্যতম সফল জুটি। সালমানের তিন বছরের ক্যারিয়ারে অধিকাংশ সিনেমাই শাবনূরের সঙ্গে। স্পষ্ট করে বললে, ২৭টি ছবির মধ্যে ১৪টিতে তারা জুটিবদ্ধ হয়েছিলেন।

শুধুই কি সিনেমা? সালমান শাহ ও শাবনূরের মধ্যকার প্রেমের গল্পও ছিল ঢালিউডের টক অব দ্য ইন্ডাস্ট্রি। যদিও সালমান চলে যাওয়ার পর থেকে শাবনূর বরাবরই ওই সম্পর্ককে ‘বন্ধুত্ব’ বলেই আখ্যায়িত করেছেন। আর প্রায় প্রতি বছরই সালমানের জন্ম ও মৃত্যু দিনে তাকে স্মরণ করে আসছেন।

ব্যত্যয় ঘটেনি এবারও। সালমান শাহর মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে তার সঙ্গে ফ্রেমবন্দি তিনটি ছবি পোস্ট করেছেন অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী শাবনূর। সঙ্গে মনের আবেগ মিশিয়ে লিখেছেন, ‘কোথায় হারিয়ে গেলে সালমান? তোমার স্মৃতিগুলো আজও আমায় কাঁদায়।’

সালমান শাহর আত্মার শান্তি কামনা করে শাবনূর বলেছেন, ‘অমর নায়ক সালমান শাহর মৃত্যুবার্ষিকী আজ (৬ সেপ্টেম্বর)। দীর্ঘ ২৭ বছর পর এখনও তাকে ভুলতে পারেনি চলচ্চিত্রাঙ্গনের মানুষ ও তার সমর্থকরা। যেখানে আছো, ভালো থেকো স্বপ্নের নায়ক। তোমার মাগফেরাত কামনা করছি।’ সালমান শাহ ও শাবনূর দর্শকের প্রিয়তম জুটি। তাই শাবনূরের এমন বার্তা দেখে নেটিজেনরাও আপ্লুত। দুজনের প্রতি ভালোবাসা প্রকাশ করছেন মনের আগল খুলে। ১৯৯৬ সালের ৬ সেপ্টেম্বর সালমান শাহর রহস্যমৃত্যু ঘটে। আজ অব্দি সেই রহস্যের পূর্ণাঙ্গ কিনারা হয়নি। সর্বশেষ ২০২০ সালে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন তদন্ত শেষে জানায়, সালমান শাহ আত্মহত্যা করেছিলেন। আর এর পেছনে ছিল পাঁচটি কারণ।

ওই পাঁচ কারণের মধ্যে প্রথমটিই হলো ‘চিত্রনায়িকা শাবনূরের সঙ্গে সালমানের অতিরিক্ত অন্তরঙ্গতা’। অন্য কারণগুলো হলো- স্ত্রী সামিরার সঙ্গে দাম্পত্য কলহ, মাত্রাধিক আবেগপ্রবণতার কারণে একাধিকবার আত্মঘাতী হওয়ার বা আত্মহত্যার চেষ্টা; মায়ের প্রতি অসীম ভালোবাসা জটিল সম্পর্কের বেড়াজালে পড়ে পুঞ্জীভূত অভিমানে রূপ নেওয়া এবং সন্তান না হওয়ায় দাম্পত্য জীবনে অপূর্ণতা।

যদিও এই তদন্ত প্রতিবেদনে সন্তুষ্ট হয়নি সালমান শাহর পরিবার। এমনকি নায়কের ভক্তরাও মনে করেন, তিনি আত্মহত্যা করেননি। তাই ‘স্বপ্নের নায়ক’র মৃত্যু এখনও এক অমীমাংসিত রহস্য।